ডোনাল্ড ট্রাম্প না জো বাইডেন কে হবেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আগামী রাষ্ট্রপতি। তারই গণনা চলছে সুদূর আমেরিকায়। কিন্তু আগামী মার্কিন রাষ্ট্রপতি নিয়ে এই মধ্যই জল্পনা শুরু হয়েছে নয়াদিল্লিতে। কারণ আগামী মার্কিন রাষ্ট্রপতির ওপরেই নির্ভর করবে ভারত মার্কিন দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক। বর্তমান মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সম্পর্ক যথেষ্ট ভালো।  একে অপরকে বন্ধু বলেই পরিচয় দেন। কিন্তু যদি মার্কিন রাষ্ট্রপতি হিসেবে  জো বাইডেন নির্বাচিত হন, তাহলে কী ভারতের সঙ্গে আমেরিকার সম্পর্ক এতটা ভালো থাকবে? যা নিয়ে আশ্বাস দিয়েছেন বিদেশ সচিব হর্ষ শ্রিংলা। 

বিদেশ সচিব হর্ষ শ্রিংলার মতে মার্কিন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের ফলাফলের ওপর দুই দেশের দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক নির্ভর করবে না। এই সম্ভাবনা খুবই কম। তিনি বলেন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক নির্ভর করে দ্বিপাক্ষিক সমর্থনের ওপর। ভারত মার্কিন সম্পর্ক অত্যন্ত বিস্তৃত ও বহুপাক্ষিক। আমরা শুধুমাত্র মূল্যবোধ আর নীতিবোধই ভাগ করে নিই না একে অপরের সঙ্গে। দুটি দেশ বেশ কয়েকটি বিষয়ে একে অপরের ওপর নির্ভারশীল। দুটি দেশের একটি কৌশলগত দৃষ্টি রয়েছে। ট্রাম্পের সঙ্গে মোদী বিশেষ সম্পর্কের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার সম্পর্কও খুব ভালো ছিল। 

আরও পড়ুনঃ অর্ণব গোস্বামীর গ্রেফতারি নিয়ে রাজনৈতিক তরজা, বিজেপি বনাম সেনার লড়াইয়ে হাতিয়ার কংগ্রেস .

আরও পড়ুুনঃ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দেখান পথেই বাম কেরলা , বিশ বাঁও জলে লাইফ মিশন তদন্ত

অন্যদিকে  একটি সাক্ষাৎকারে ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী জো বাইডেন বলেছেন ভারত একটি শক্তিশালী দেশ। ভারত মার্কিন সম্পর্ক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। জো বাইডেনের এই মন্তব্য তুলে ধরে শ্রিংলা বলেন জো বাইডেন যদি রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন তাহলে মার্কিন রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্পের থেকে খুব একটা অন্য দিকে হাঁটবেন না। তবে বর্তমানে চিনের আগ্রাসন যে ভারতকে ভাবিয়ে তুলেছে তার ইঙ্গিত দিয়েছেন তিনি। বিদেশ সচিব বলেছেন দেশের অখণ্ডতা ও সার্বভৌমত্ব নিয়ে কোনও রকম আপোষ করা হবে না।