প্রকাশ্যে মহিলাকে লাথি মেরে সমালোচনার রোষে মুখে পড়লেন গুজরাটের বিজেপি বিধায়ক। আহমেদাবাদের নারদায় জল সরবরাহের দাবিতে ধর্নায় বসেছিলেন এক মহিলা। সেই মহিলাকেই লাথি মারেন বলরাম থাওয়ানি নামের ওই বিধায়ক। সেই ঘটনার ভিডিও মুহূর্তে ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। ওই বিধায়কের বিরুদ্ধে ন্যাশনালিস্ট কংগ্রেস পার্টির সমর্থক নীতু তেজওয়ানী থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। 

ঘটনাস্থলে উপস্থিত প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, ধর্না এলাকায় ওই মহিলাকে  বিজেপির বেশ কয়েকজন কর্মী সমর্থক ঘিরে ছিলেন। তখনই বলরাম থাওয়ানি এসে ওই মহিলাকে লাথি মারেন। 

 

 

অভিযোগকারীনী নীতু জানিয়েছেন, "এলাকায় জলের অভাব রয়েছে। সে ব্যাপারে বলরামের সঙ্গে কথা বলতে গিয়েছিলাম। কোনও কথা না বলেই সে আমায় মারধর করা শুরু করে। আমার স্বামী দেখেই ছুটে আসে। তখন বিজেপির কয়েকজন সমর্থক ভিতর থেকে এসে আমার স্বামীকেও মারতে থাকে। আমার সঙ্গে যে মহিলারা প্রতিবাদ করছিলেন, তাঁদেরকেও নির্মম ভাবে মারা হয়।" 

প্রথমে আত্মরক্ষার জন্য মেরেছি বললেও, পরে সমালোচনার মুখে পড়ে ক্ষমা চান বিধায়ক। বলরাম বলেন, "আমি মাথা গরমে করে ফেলেছি। আমি ভুল স্বীকার করে নিচ্ছি। এটা উদ্দেশ্য প্রণোদিত ছিল না। ২২ বছর ধরে আমি রাজনীতিতে আছি। এরকম কখনও ঘটেনি। আমি মহিলার কাছে দুঃখপ্রকাশ করব।"