চার বছরের সন্তান ও স্ত্রীকে রেখে চলে যেতে হয়েছে তাঁকে। তিনি ভারতীয় সেনার এক উজ্জল মুখ, মেজর কেতন শর্মা। সোমবার  উত্তর প্রদেশের মেরঠে ৩২ বছর বয়সী যুবক অনন্তনাগে সন্ত্রাসবাদীদের স‌ঙ্গে গুলির লড়াইয়ে ভয়ানক জখম হন। তড়িঘড়ি হাসপাতালে পাঠানো হলেও তাকে বাঁচানো যায়নি। 

কেতনের মৃত্যুসংবাদ বাড়িতে পৌঁছতেই কান্নায় ভেঙে পড়ে তাঁর পরিবার। কেতনের মায়ের বুকফাটা কান্নার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে মুহূর্তের মধ্যে। কেতনের এক কাকা সংবাদসংস্থা এএনআই-কে জানান, প্রথমে কেতনের আহত হওয়ার খবর পেয়েছিলাম আমরা। তার পরে আমরা জানতে পারি সে মারা গিয়েছে।  ২০১২ সালে ভারতীয় সেনায় যোগদান করেন কেতন শর্মা। ১৯ নং রাষ্ট্রীয় রাইফেলে তিনি কর্মরত ছিলেন।  মৃত্যুর আগে স্ত্রীকে নিজের একটি ছবিও পাঠান কেতন। বলেন এটিই হয়ত আমার শেষ ছবি।

দেখুন সেই ভিডিওঃ

মঙ্গলবার দিল্লিতে কেতনের মরদেহ নিয়ে আসা হলে শেষ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী রাজনাথ সিংহ। উপস্থিত ছিলেন সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াতও। প্রসঙ্গত এই বছর কাশ্মীরে সেনার তরফে মারা হয়েছে মোট ১১৩ জন জঙ্গিকে।পুলওয়ামা কাণ্ডের পরে মারা হয়েছে ৮৫ জনকে। প্রাণ গিয়েছে ২৬ জন সেনারও। 

আরও পড়ুনঃ পুলওয়ামা হামলায় তারই গাড়ি, ঘরে ঢুকে সাজ্জাদকে হত্যা করল ভারতীয় সেনা

প্রসঙ্গত কাশ্মীরের অনন্তনাগে গুলির লড়াই এখনও অব্যাহত। গত বুধবার গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হয়েছে আরও দুই জঙ্গির। মৃত জইশ জঙ্গি সাজ্জাদ ভাটের গাড়ি গত ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামা হামলায় ব্যবহার করা হয়েছিল। মৃত অন্য জঙ্গির নাম আহমেদ ভাট।