কাশ্মীরে সেনা বনাম জঙ্গি লড়াই চলছেই। গুলির লড়াইয়ে এবার মৃত্যু হল দুই জঙ্গির। তাদের মধ্যে একজনকে শনাক্ত করা গিয়েছে। মৃত জইশ জঙ্গি সাজ্জাদ ভাটের গাড়ি গত ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামা হত্যাকাণ্ডে ব্যবহার করা হয়েছিল। মৃত অন্য জঙ্গির নাম আহমেদ ভাট। 

সাজ্জাদের মারুতি ইকো গাড়িতে ২৫ কেজি এক্সপ্লোসিভ বোঝাই করে আত্মঘাতী হামলা চালায় জঙ্গি আদিল দার। 

এদিন ভোরবেলা থেকেই গুলির লড়াই চলছে অনন্তনাগের মারাহোম জেলায়। গোয়েন্দা দফতর থেকে আগেই জানানো হয়েছিল সেনাকে যে এখানে লুকিয়ে আছেন কুখ্যাত জইশ জঙ্গি। সেই তথ্য হাতে পেয়েই ,তৎপরতা শুরু হয় যৌথবাহিনীর। গোটা এলাকা সেনা ঘিরে ফেলে। খবর পেয়ে প্রথম আঘাত করে জঙ্গিরাই। তাতে শহিদ হন একজন সেনা, জখম হন আরও দুই সেনা। আহত সেনাদের নিকটবর্তী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
এনআইএ সূত্রে জানা যাচ্ছে, নিহত জঙ্গি, সাজ্জাদ ভাট সোফিয়ান প্রদেশের এক মাদ্রাসার সদস্য ছিল। পুলওয়ামা ঘটনার কয়েকদিন আগে সে গায়েব হয়ে যায়। 
গত সোমবারও একপ্রস্থ গুলির লড়াই চলে অনন্তনাগে। ৪৪ রাষ্ট্রীয় রাইফেলের সেনা মেজর কেতন শর্মা সোমবার নিহত হন জঙ্গিহামলায়। রাহুল ভার্মা নামক এক সেনাকর্মীও আহত হন। 

এই বছর কাশ্মীরে এ যাবৎ সেনার তরফে মারা হয়েছে মোট ১১৩ জন জঙ্গিকে।পুলওয়ামা কাণ্ডের পরে মারা হয়েছে ৮৫জনকে। প্রাণ গিয়েছে ২৬ জন সেনারও।