বিকাশ দুবের এনাকাউন্টার নিয়ে শুক্রবার সকাল থেকেই জোর তরজা শুরু হয়েছে। অনেকেই এটাকে পুলিশের 'সাজানো ঘটনা’ বলে তোপ দেগেছেন আবার অনেকেই আসল ঘটনা জানতে নিরন্তর খোঁজ চালাচ্ছেন। কারণ গ্যাংস্টার বিকাশ দুবের এনকাউন্টার নিয়ে পুলিশের বয়ানে অনেকগুলো প্রশ্ন উঠে আসছে ।  এই এনকাউন্টারের ঘণ্টা দুয়েক আগেই অর্থাৎ ভোর চারটের সময়ের টোল প্লাজার সিসিটিভি ফুটেজ এসেছে মিডিয়ার হাতে।  এই টোলপ্লাজার সিসিটিভি ফুটেজে স্পষ্ট বোধা যাচ্ছে যে গাড়িটি উল্টে গেছিল বলে পুলিশ দাবি করেছ , আদৌ সেই গাড়িতেই ছিল না বিকাশ দুবে। বরং  গ্যাংস্টার ছিল অন্য গাড়িতে ।  তাই  গাড়ি ওল্টানো আর বিকাশ দুবের পালানোর চেষ্টা- পুলিশের এই দুটি বক্তব্য নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

আরও পড়ুন: বিকাশ দুবের এনকাউন্টার নিয়ে সরগরম রাজনীতি, এর মাঝেই ফের কঠোর লকডাউনের পথে যোগী রাজ্য

বিকাশের মৃত্যুর খবর সামনে আসতে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের তরফে জানানো হয়, কনভয়ে বিকাশের গাড়ি দুর্ঘটনার কবলে পড়ার পর পুলিশের পিস্তল ছিনিয়ে পালানোর চেষ্টা করে বিকাশ। কানপুরের ‘ডন’ গুলি চালালে আত্মরক্ষার্থে পাল্টা গুলি চালায় পুলিশ। তাতেই বিকাশের মৃত্যু হয়। ভোর ৪টে নাগাদ একটি টোলপ্লাজার পেরনোর সময় কনভয়ের যে গাড়িতে বিকাশ ছিল, সেই গাড়ি কিন্তু দুর্ঘটনার কবলে পড়েনি। তাহলে কি মাঝ পথে বিকাশের গাড়ি বদলানো হয়েছিল? এ নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করেনি উত্তরপ্রদেশ পুলিশ।

শুধু এখানেই সহস্যের শেষ নয়। ‘সংঘর্ষ’-এর মাত্র আধঘণ্টা আগের একটি ভিডিয়ো সামনে এসেছে, যেখানে দেখা যাচ্ছে বিকাশের কনভয়ের পিছু পিছু যাওয়া সংবাদমাধ্যমের গাড়ি আটকে দিচ্ছে পুলিশ। কেন আটকে দেওয়া হয়েছিল সংবাদ মাধ্যমকে, তা নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। ওই ঘটনা পূর্ব পরিকল্পিত কি না, সেই প্রশ্নই উস্কে দিচ্ছে এই  ভিডিয়ো।

 

যেখানে বিকাশের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষ হয়, সেখানকার স্থানীয়রা বেশ কয়েক রাউন্ড গুলি চলার শব্দ শুনেছেন বলে দাবি করেছেন। গুলির শব্দ শুনে কী ঘটছে দেখতে এলে পুলিশ তাঁদের সেখান থেকে চলে যেতে বলেছিল বলে জানিয়েছেন তাঁরা। 

আরও পড়ুন: বিশ্বে সর্পদংশনে মৃত্যুর অর্ধেকই ভারতে, রিপোর্ট বলছে প্রতি বছর গড়ে প্রাণ হারান ৫৮ হাজার

পুলিশ দাবি করছে, বিকাশ দুবে পিস্তল ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছিল ।  কিন্তু যার বিরুদ্ধে খুন-সহ ৬০টি মামলা রয়েছে, তাকে হ্যান্ডক্র্যাফ্ট না পরিয়েই কেন নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল এই সাধারণ প্রশ্নও উঠে আসছে।   

গাড়িটি এমন এক জায়গায় উল্টে যায়, যেখানে কোনও বাধা ছিল না। তাহলে কীভাবে দুর্ঘটনা? পুলিশের বক্তব্য তারও কোনও সদুত্তর নেই। তারা দাবি করছে  গাড়ি ওল্টানোর পর বিকাশ দুবে খেতের মধ্যে দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। 

এর মাঝেই মধ্যপ্রদেশ পুলিশের কথোপকথন নিয়ে নতুন করে দানা বাঁধছে রাহস্য। সম্প্রতি ভাইরাল হওয়া একটি  ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, বিকাশ দুবে কখন কানপুরে পৌঁছাবে সেই প্রসঙ্গে মধ্যপ্রদেশের এক পুলিশ কর্মী তার এক সহকর্মীকে জিজ্ঞেস করছেন। তার প্রত্যুত্তরেই ওই পুলিশ কর্মী বলেন, ‘আমি আশা করি সে পৌঁছাবে না।' আর একখানেই দানা বাঁধছে রহস্য। তবে কি এই এনকাউন্টার আগে থেকেই প্ল্যান ছিল ? প্রশ্ন তুলছেন অনেকেই। এরমধ্যেই কানপুর ঢোকার আগে সাচেন্দ্রী এলাকায় সংবাদমাধ্যমকে আটকে দেওয়া, বিকাশের মৃত্যু রহস্যকে আরও জটিল করেছে।