ভারত থেকে নাকি ব্যবসা গুটিয়ে ফেলছে ভোডাফোন। দেশের টেলিকম জগতে এমনই একটি খবর ঘোরাফেরা করছিল গত কয়েকদিন ধরে। এরই মধ্যে সর্বভারতীয় একটি সংবাদসংস্থাও দাবি করে, বিপুল ক্ষতির মুখে পড়ে ভারত থেকে পাততাড়ি গোটাচ্ছে দেশের অন্যতম বৃহৎ এই টেলিকম সংস্থা। যে কোনও দিন সংস্থা এই সিদ্ধান্ত নিতে পারে বলেই দাবি করা হয়েছিল ওই রিপোর্টে। বিপুল আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েই সংস্থা এমন সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে বলে খবর ছড়িয়েছিল। 

স্বভাবতই এমন খবরে তোলপাড় পড়ে যায় দেশের টেলিকম বাজারে। ভোডাফোনের বিপুল সংখ্যক গ্রাহকদের কী হবে, তা নিয়েও তৈরি হয় জল্পনা। শেষ পর্যন্ত অবশ্য সমস্ত দাবিকে নস্যাৎ করে দিয়ে যুক্তরাজ্য থেকে ভোডাফোন গ্রুপ দাবি করল, ভারত থেকে তাদের ব্যবসা গুটিয়ে নেওয়ার খবর সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। এই মুহূর্তে ভারতে ভোডাফোন আইডিয়া নামে যৌথ উদ্যোগে ব্যবসা করছে সংস্থাটি। ভোডাফোন গ্রুপের তরফে বিবৃতি জারি করে দাবি করা হয়েছে, ভারতে সংস্থা কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে গেলেও ব্যবসা গোটানোর কোনও সম্ভাবনা নেই। সংস্থার বদনাম করার জন্যই এমন খবর ছড়়িয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে পাল্টা অভিযোগ করেছে ভোডাফোন। কঠিন পরিস্থিতি থেকে বেরিয়ে আসার জন্য ভারত সরকারের সঙ্গে আলোচনা করার পাশাপাশি ভারতে যৌথ উদ্যোগ পরিচালনার দায়িত্বে থাকা ম্যানেজমেন্টকেও সম্পূর্ণ সহযোগিতার কথা জানিয়েছে ভোডাফোন গ্রুপ। 

সংবাদসংস্থার প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছিল, চলতি আর্থিক বছরের প্রথম ত্রৈমাসিকে ৪০৬৭ কোটি টাকার বিপুল আর্থিক লোকসানের সম্মুখীন হতে হয়েছে সংস্থাকে। যা গতবছরের প্রথম ত্রৈমাসিকের তুলনায় প্রায় তেরশো কোটি টাকা বেশি। শুধু তাই নয়, সুপ্রিম কোর্টের একটি সাম্প্রতিক রায়ের ফলে স্পেট্রামের দর, সুদ, জরিমানা- সহ আরও বেশ কয়েকটি বিষয় বাবদ সংস্থাকে মোট ২৮,৩০৯ কোটি টাকা মেটাতে হবে। যার ফলে আরও চাপে পড়ে গিয়েছে ভোডাফোন আইডিয়া। শেষ পর্যন্ত আশঙ্কা তৈরি হলেও ভোডাফোন গ্রুপ জানিয়ে দিল, ভারতের বাজার থেকে তারা বিদায় না নিয়ে ঘুরে দাঁড়ানোর রাস্তা খুঁজে বের করার চেষ্টা চালাচ্ছে। সংস্থার গ্রাহকদের পাশাপাশি কর্মীদের জন্যও যা অত্যন্ত স্বস্তির খবর।