মঙ্গলবার, কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা জাতীয় জনসংখ্যা নিবন্ধন বা এনপিআর আপডেট করার জন্য প্রায় সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। জানানো হয়েছে আপডেটের প্রক্রিয়াটি আগামী বছরের এপ্রিল-এ শুরু করে সেপ্টেম্বরের মধ্যে শেষ করা হবে। ২০১০ সালেই প্রথম এনপিআর তৈরি করা হয়েছিল। পরে ২০১৫ল সালে আধার-এর সঙ্গে যুক্ত করার সময় এটি একবার আপডেট করা হয়। তবে বর্তমানে দেশব্যপী সিএএ-এনআরসি নিয়ে তীব্র বিতর্কের মধ্যে এনপিআর আপডেট করার প্রসঙ্গ আসায় এই নিয়ে অনেকের মধ্যেই ব্যাপক বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে। অনেকে জনগণনার সঙ্গে একে গুলিয়ে ফেলছেন। আবার অনেকে বলছেন এনপিআর আর এনআরসি-র মধ্যে তফাৎ নেই। একনজরে জেনে নেওয়া যাক ন্যাশলাল পপুলেশন রেজিস্টার বা এনপিআর আসলে কী। এনআরসি বা জনগণনার থেকে কোথায় এটি আলাদা?

এনপিআর কি?

এনপিআর হল দেশের 'সাধারণ বাসিন্দা'দের একটি রেজিস্টার বা পঞ্জী। ১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইন, ২০০৩ সালের নাগরিকত্ব বিধি অনুসারে স্থানীয় (গ্রাম / উপ-শহর), মহকুমা, জেলা, রাজ্য ও জাতীয় পর্যায়ে তথ্য সংগ্রহ করা হবে।

কারা ভারতের 'সাধারণ বাসিন্দা'?

১৯৫৫ সালের নাগরিকত্ব আইন, ২০০৩ সালের নাগরিকত্ব বিধি নিয়ে অনুসারে বিগত ছয় মাস বা তার বেশি সময় ধরে কোনও স্থানীয় অঞ্চলে বসবাসকারী বা পরবর্তী ছয়মাস ওই অঞ্চলে বসবাস করবেন এমন ব্যক্তিদের 'সাধারণ বাসিন্দা' হিসেবে ধরা হবে। এই আইনের বলে ভারতের প্রতিটি নাগরিককে বাধ্যতামূলকভাবে নিবন্ধিত করা এবং তাদের একটি জাতীয় পরিচয়পত্র দেওয়া হবে।

কারা করবে এনপিআর আপডেট?

এনপিআর আপডেট করার প্রক্রিয়াটি পরিচালনা করবেন ভারতের রেজিস্ট্রার জেনারেল এবং সেন্সাস কমিশনার।

কী ধরণের তথ্য সংগ্রহ করা হবে?

এনপিআর-এর মাধ্যমে দেশের প্রতিটি সাধারণ বাসিন্দার একটি বিস্তারিত পরিচয়ের তথ্যভান্ডার তৈরি করা হবে। এই তথ্য ভান্ডারে তোলা হবে কোনও ব্যক্তি বিশেষের নাম, পারিবারিক প্রধানের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক, বাবার নাম, মায়ের নাম, বিবাহিত হলে স্ত্রীর নাম, লিঙ্গ, জন্ম তারিখ, বৈবাহিক অবস্থা, জন্মস্থান, ন্যাশনালিটি, বর্তমান ঠিকানা, বর্তমান ঠিকানায় থাকার সময়কাল, স্থায়ী ঠিকানা, পেশা এবং শিক্ষাগত যোগ্যতা।

এনপিআর-এর জন্য কী কী নথি লাগবে?

এনপিআর আপডেট করার জন্য কোনও নথিই দিতে হবে না। অমিত শাহ জানিয়েছেন এনপিআর-এর ফর্মে উত্তরদাতা যা যা তথ্য দেবেন তাই সঠিক বলে বিবেচিত হবে। কোনও নথি বা বায়োমেট্রিক প্রমাণের প্রয়োজন হবে না।

কোথায় কোথায় এনপিআর হবে?

ইতিমধ্যেই জাতীয় নাগরিকপঞ্জী তৈরি করা হয়েছে বলে, অসমে এনপিআর আপডেট করা হবে না। তা ছাড়া ভারতব্যপীই এনপিআর আপডেট করা হবে।

জনগণনার আর এনপিআর-এর তফাৎ কী?

এনপিআর আপডেট এবং জনগণনার প্রক্রিয়া একই সঙ্গে করা হবে। এই দুই তথ্যভান্ডার কিন্তু এক নয়। ভারতে জনগণনা করা হয় প্রতি দশ বছর অন্তর অন্তর। এটা জনগণের বিভিন্ন বৈশিষ্ট্যের পরিসংখ্যানগত তথ্যের বৃহত্তম এবং একক উৎস। এনপিআর-এ যেখানে শুধুমাত্র ডেমোগ্রাফিক বা জনসংখ্যার তথ্য থাকবে, সেখানে জনসংখ্যার জন্য ডেমোগ্রাফিক তথ্যের পাশাপাশি, অর্থনৈতিক কার্যকলাপ, সাক্ষরতা এবং শিক্ষা, এবং আবাসন ও গৃহস্থালীগত সুবিধা ইত্যাদি সম্পর্কে বিশদ তথ্যের প্রয়োজন।