সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামীর সঙ্গে একই বিমানে লখনই যাচ্ছিলেন স্ট্যান্ড আপ কমেডিয়ান কুণাল কামরা। বিমানের ভেতর অর্ণবকে নিয়ে নানারকমের মন্তব্য করেছিলেন কুণাল। যা সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়তেই তীব্র  প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়। গোটা ঘটনাটি ঘটে ইন্ডিগোর বিমানে। আত তারপরেই মঙ্গলবার ইন্ডিগোর তরফে জানিয়ে দেওয়া হয় এমন ব্যবহারের জন্য ছয় মাসের জন্য কুণালের বিমানযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা জারি করছে তারা। ইন্ডিগোর মত এয়ার ইন্ডিয়াও ছয় মাসের জন্য কুণালকে বিমানে উঠতে না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

এদিকে বিমান সংস্থাগুলি  কুণালের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়ার পর  প্রশ্ন তুলেছেন একদল নেটিজেন। এই প্রসঙ্গেই উঠে আসছে  বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞা সিং ঠাকুরের ভাইরাল হওয়া একটি ভিডিও। গত বছরের শেষের দিকে বিমানের আসন পছন্দ না হওয়া নিয়ে স্পাইস জেটের কর্তাদের সঙ্গে বচসায় জড়িয়েছিলেন প্রজ্ঞা।  যার জেরে কমপক্ষে ৪৫ মিনিট দেরিতে আকাশে ওড়ে দিল্লি থেকে ভোপালগামী স্পাইস জেটের বিমানটি। দেরিতে বিমান ছাড়ায় হয়রানি হয় যাত্রীদের। এই ঘটনার জেরে বিতর্কে জড়ান ভোপালের বিজেপি সাংসদ। এর পরেও অবশ্য স্পাইস জেট কর্তৃপক্ষ বিজেপি সাংসদ প্রজ্ঞার বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেয়নি।

 

কুণাল কামরার বিরুদ্ধে জারি হওয়া বিমান সংস্থাগুলির নিষেধাজ্ঞা নিয়ে এখন কার্যত দুই ভাগ নেট দুনিয়া। কেই কেই কুণালের বিরুদ্ধে পদক্ষেপকে সমর্থন জানালেও অনেকেই তাঁর পাশে দাঁড়াচ্ছেন। বিমান সংস্থাকে হেনস্থার পরও কেন প্রজ্ঞা ঠাকুরের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হল না তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন নেটিজেনরা। 

 

কুণালের উপর নিষেধাজ্ঞা জারির জন্য বিমান সংস্থাগুলির কাছে আবেদন করেছিলেন খোদ অসামরিক বিমানমন্ত্রী হরদীপ পুরী। তার সেই ট্যুইটের নীচে অনেকেই  প্রজ্ঞাকে নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। কুণাল প্রজ্ঞার মত বিমান কর্মীদের হেনস্থা না করেও কেন শাস্তির মুখে পড়লেন তার জবাব চেয়েছেন অনেকেই।