রবিবারই ভারত বনাম ওয়েস্টইন্ডিজ দ্বিতীয় ম্যাচ।  তিন ম্য়াচের একদিনের সিরিজের প্রথম ম্যাচটি বৃষ্টিতে ভেস্তে গিয়েছে। আর এই ম্যাচে ফোকাসটা রয়েছে দুই ভারতীয় ক্রিকেটারের উপর। অবশ্য, ওয়েস্টইন্ডিজ বোর্ড টেস্ট দলে না রাখায় সিরিজের শেষ দুটি ম্যাচই সম্ভবত ক্রিস গেইলের আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের শেষ দুই ম্যাচ হতে চলেছে। ফলে নজর থাকবে তাঁর উপরও।

ভারত বনাম ওয়েস্টইন্ডিজ তিন ম্য়াচের একদিনের সিরিজের প্রথম ম্যাচটি বৃষ্টিতে ভেস্তে গিয়েছে। রবিবারই দ্বিতীয় ম্যাচ। আর এই ম্যাচে ফোকাসটা রয়েছে দুই ভারতীয় ক্রিকেটারের উপর। অবশ্য, ওয়েস্টইন্ডিজ বোর্ড টেস্ট দলে না রাখায় সিরিজের শেষ দুটি ম্যাচই সম্ভবত ক্রিস গেইলের আন্তর্জাতিক কেরিয়ারের শেষ দুই ম্যাচ হতে চলেছে। ফলে নজর থাকবে তাঁর উপরও।

টি২০ সিরিজে খেলার সুযোগ পাননি শ্রেয়স আইয়ার। প্রথম ওডিআই-তে দলে ছিলেন, কিন্তু ম্য়াচ ভেস্তে যাওয়ায় খেলা হয়নি। ভারতীয় দলে চার নম্বর জায়গাটা এখনও কেউ পাকা করে উঠতে পারেননি। বিশ্বকাপে শিখর ধাওয়ান চোট পাওয়ার পর গোড়াপত্তন করতে নেমে কেএল রাহুল ভালই খেলেছেন। তাই তাঁকে তৃতীয় ওপেনার হিসেবেই দেখছে টিম ম্যানেজমেন্ট। এই সুযোগে মিডল অর্ডারে নিজের জায়গাটা পাকা করতে চাইছেন শ্রেয়স।

সদ্যই ওয়েস্টইন্ডিজ 'এ' দলের বিরুদ্ধে পর পর দুটি ম্যাচে অর্ধশতরান করেছেন তিনি। সিরিজের দুটি ম্যাচে ভাল খেললেই চার নম্বর জায়গায় তার আসন পাকা হয়ে যাবে তা নয়। তবে একটা শ্বাস নেওয়ার মতো জায়গা পাবেন মুম্বইয়ের এই তরুণ ব্যাটার। তাই তিনি কেমন খেলেন সেই দিকে নজর থাকবে সবার।

তিনি ছাড়া আরেকজনও রয়েছেন ফোকাসে। বিশ্বকাপের পর দীনেশ কার্তিককে নিঃশব্দেই ছেঁটে ফেলা হয়েছে। মনে করা হচ্ছে এবার পালা কেদার যাদবের। বিশ্বকাপের সময় থেকেই তাঁকে দলে রাখার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। তাঁর বিরুদ্ধে বলা হচ্ছে কেদারের ব্য়াটে সেই স্কিল নেই যে তিনি উপরে ব্যাট করতে পারবেন, আবার সেই জোরও নেই যে ইনিংসের শেষ দিকে ইচ্ছেমতো বল বাউন্ডারি পার করাতে পারবেন। দলে কুলদীপ চাহাল, জাদেজারা থাকায় তাঁর স্পিন বলেরও সেইরকম দরকার নেই।

এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছেন শুভমান গিল। ক্যারিবিয়ান সফরেই তাঁকে দলে না নেওয়া নিয়ে সমালোচনা হয়েছে নির্বাচকদের। সৌরভের মতো প্রাক্তন ক্রিকেটাররা অবিলম্বে শুভমানকে দলে নেওয়ার পক্ষে সওয়াল করেছেন। সিনিয়র দলের বাইরে থেকেই একের পর এক ভাল পারফরম্যান্সে তিনি নিজের দাবি আরও জোরালো করছেন। ফলে কেদার যাদব এই মুহূর্তে একটা দড়ির উপর দিয়ে হাঁটছেন বলা যায়। খুব ভাল পারফরম্যান্স ছাড়া, তাঁর দল থেকে ছিটকে যাওয়াটা স্রেফ সময়ের অপেক্ষা।

আগের ম্যাচ পরিত্য়ক্ত হওয়ায় ভারতীয় দলের প্রথম একাদশে পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা কম। তবে খলিল আহমেদ আগের ম্য়াচে ৩ ওভারে ২৭ রান দিয়েছিলেন। তাই তাঁকে বসিয়ে যুজবেন্দ্র চাহালকে সুযোগ দেওয়া হতে পারে।