কেন্দ্রের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে কাশ্মীরে পরিস্থিতি প্রায় স্বাভাবিক হয়ে এসেছে। সংবাদকর্মীরা স্বাধীনভাবে কাজ করতে পারছেন, স্কুল কলেজ স্বাভাবিকভাবে চলছে। কিন্তু তারপরেও সুপ্রিম কোর্টে কাশ্মীরে যেকতে চেয়ে একের পর এক আবেদন জমা পড়ছে। সবারই বক্তব্য কাশ্মীর হাইকোর্টে তাঁরা যেতে পারছেন না বলেই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন। এই অবস্থায় এইবার ভারতের প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ বললেন প্রয়োজনে তিনি নিজে জম্মু-কাশ্মীরে গিয়ে সেখানকার অবস্থা খতিয়ে দেখতে চান।

এদিন আদালতে কাশ্মীরে বিষয়ক এক মামলার শুনানি চলাকালীন তিনি প্রশ্ন করেন কেন জম্মু ও কাশ্মীর হাই কোর্টে যেতে সমস্যা হবে? কেউ কি বাধা দিচ্ছে? হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতির কাছ থেকে এই বিষয়ে শীর্ষ আদালত খবরাখবর নেবে বলেও জানান তিনি। এরপরই বলেন প্রয়োজনে তিনি নিজে যেতে চান জম্মু-কাশ্মীর হাইকোর্টে যাওয়া সত্যিই সমস্যার কি না তা খতিয়ে দেখতে। তিনি আরও বলেন সমস্যা যদি সত্যিই থেকে থাকে তবে সুপ্রিম কোর্টের কিছু অবশ্যই করতে হবে।  

কাশ্মীরের বিধি-নিষেধ নিয়ে এই মামলার শুনানিতে সরকার পক্ষের প্রতিনিধি ছিলেন সলিসিটর জেনারেল কেকে ভেনুগোপাল। তিনি অবশ্য দাবি করেন জম্মু কাশ্মীরে লোক আদালতগুলি সব সব আদালতই স্বাভাবিকভাবেই চলছে। সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা প্রতিনিয়ত উপত্যকায় যাচ্ছেন। প্রতিদিন খবরের কাগজ প্রকাশিত হচ্ছে কাশ্মীরে। ডিশ টিভি চালু হয়ে গিয়েছে। চলছে রেডিও কাশ্মীরও। কিন্তু তারপরেও আদালতের পক্ষ থেকে কাশ্মীরে যত দ্রুত স্বাভাবিক অবস্থা ফেরানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।