কালা জাদু করার সন্দেহ। আর তাতেই হায়দরাবাদে এক ১৭ বছরের তরুণকে গণপিটুনিতে হত্যা করা হল। পরে উত্তেজিত জনগণ তার দেহও জ্বালিয়ে দেয়। ঘটনাটি ঘটেছে ১৮ সেপ্টেম্বর রাতে।

পুলিশ জানিয়েছে ১৮ তারিখ বিকেলে লক্ষ্মী নামে ৫০ বছরের এক মহিলার মৃত্যু হয়। সেখান থেকেই ঘটনার সূত্রপাত। ওই মহিলার মৃত্যুর পরই তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়, বয়ানি আনজানেয়ুলু নামে ওই ১৭ বছরের তরুণ কালা জাদু করেছেন। তাতেই লক্ষ্মী দেবীর মৃত্যু হয়েছে। বয়ানি তাদের প্রতিবেশী। তিনি অটোরিক্সা চালাতেন।

এরপর বয়ানি আনজানেয়ুলু, লক্ষ্মী দেবীর শেষ কৃত্যে হাজির হলে, লক্ষ্মী দেবীর পরিবারের লোক কুঠার, কাস্তে নিয়ে হামলা করে তাঁর উপর। প্রকাশ্যেই তাঁকে কুপিয়ে সেখানেই হত্যা করা হয়। তারপর লক্ষ্মী দেবীর চিতাতেই তাঁর দেহ ছুড়ে ফেলে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়।

অভিযোগ গোটা ঘটনা চলাকালীন পুলিশ নাকি খবরই পায়নি। অনেক রাতে খবর পেয়ে তারা যখন শেষ পর্যন্ত ঘটনাস্থলে পৌঁছায় তখন সেখানে শুধুমাত্র
বয়ানি আনজানেয়ুলুর দেহাবশেষ ছাই হয়ে পড়েছিল।

ভারতের বিভিন্ন স্থানে গত কয়েক বছর ধরেই একের পর এক শিশু অপহরণ ও কালা জাদুর গুজবে গণহিংসার ঘটনা ঘটেছে। চলতি মাসেরই শুরুর দিকে হরিয়ানায় এক ইমাম ও তাঁর পরিবারকে কালা জাদু করার সন্দেহেই হত্যা করা হয়েছিল।