বিদেশি সন্দেহে এক মাঝ বয়সী মহিলাকে আটক করা হয়েছে বলে খবর। গোলাঘাট শহরের বাসিন্দা ডলি রায় নামে এক মহিলাকে বিদেশি সন্দেহে আটক করা হয়েছে বলে খবর। 

জানা গিয়েছে যে, শারীরিক অসুস্থতার জন্য জোরহাট ফরেনার্স ট্রাইব্যুনালে হাজিরা দিতে না পারার অভিযোগে তাঁকে আটক করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ওই মহিলা দাবি করেছেন যে, তিনি তাঁর মেডিকেল সার্টিফিকেট পুলিশের কাছে জমাও দিয়েছিলেন।  

ডলি রায় আরও দাবি করেন যে, তাঁর উত্তরাধিকার বিষয়ক যাবতীয় তথ্যের প্রমাণ তাঁর কাছে রয়েছে এবং সেগুলি নথিভুক্ত করা হয়েছে ১৯৫২ সালে। এবং শুধু তাই নয়, তাঁর বাবা-মায়ের নাম ও ভোটার তালিকায় নিবন্ধিত ছিল। সেইসঙ্গে তাঁর-ভাই বোনের নামও এনআরসি তথা ন্যশনাল রেজিস্টার অব সিটিজেনস-এর তালিকায় রয়েছে নিবন্ধিত রয়েছে। 

প্রসঙ্গত কার্গিলের যুদ্ধপরাধী মহম্মদ সানাউল্লাহ নামেও এক ব্যক্তিকে বিদেশি সন্দেহে আটক করে তাঁকে বোকোর একটি অস্থায়ী কারাগারে রাখা হয়েছিল। বোকো ট্রাইবুন্যাল থেকে বলা হয় যে, তিনি একজন 'বিদেশি'। পরে অবশ্য গুজরাত হাই কোর্ট তার জামিনের আবেদন গ্রহণ করেছিল।  

মাথায় উঠল মিস ইন্ডিয়া ২০১৯-এর শিরোপা, সোনার হাসি বালির শহরের মেয়ের মুখে

ডলি রায় এবং মহম্মদ সানাউল্লাহ-এর মতো আরও প্রায় ৪০ লক্ষ মানুষ রয়েছেন যাঁদের এনআরএ-এ নাম নথিভুক্ত করা নেই। জানা গিয়েছে যে আগামী মাসের শেষেই এনআরসি-র চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ করা হবে।