চলতি অর্থবর্ষে ভারতের অর্থনৈতিক বৃদ্ধির হার কমবে। সাবধান করছে বিশ্বব্যাঙ্ক। যার ফলে দেশের আর্থিক ক্ষেত্রের সঙ্কট আরও বাড়ার আশঙ্কা। এক রিপোর্টে বিশঅবব্যাঙ্ক জানিয়েছে, চলতি বছরের  প্রথম দুই ত্রৈমাসিকে বৃদ্ধির হার ক্রমশ কমে আসায় এই অর্থবর্ষে ভারতীয় অর্থনীতি ৬ শতাংশে নেমে আসবে। 

তবে বিশ্বব্যাঙ্ক মনে করে অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে এবং গ্রামীণ এলাকায় মানুষের আয় বাড়াতে সরকার যে সমস্ত পদক্ষেপ করেছে সেগুলি সফল হতে শুরু করলে ২০২০-২১ অর্থিক বছরে বৃদ্ধির হার বেড়ে ৬.৯ শতাংশ হবে। আর ২০২১-২০২২ আর্থিকবছরে বৃদ্ধির হার দাঁড়াবে ৭.২ শতাংশ। 

বিশ্ব ব্যাঙ্ক জানিয়েছে, এপ্রিলে তারা মনে করেছিল, চলতি অর্থবর্ষে বৃদ্ধি দাঁড়াবে ৭.৫ শতাংশে। কিন্তু এই মুহূর্তে ভারতীয় অর্থনীতির যা ছবি, তাতে তা ৬ শতাংশে নেমে আসবে বলে তাদের ধারণা। সে ক্ষেত্রে  দেশের  আর্থিক ক্ষেত্র আরও দুর্বল হবে বলে আশঙ্কা। একই ভাবে বৃদ্ধির পূর্বাভাস ৬.৯ শতাংশ থেকে ৬.১ শতাংশে নামিয়ে এনেছে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক। ৬.২শতাংশ  থেকে তা কমিয়ে ৫.৮ শতাংশ  করেছে মূল্যায়ন সংস্থা মুডিজও।

উৎপাদনের পাশাপাশি চাহিদাও কমে যাওয়ায় অর্থনৈতিক স্লথতা সর্বব্যাপী হতে শুরু করেছে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছে বিশ্বব্যাঙ্ক। এই ইবস্থায় চলতি অর্থিকবছরের অবশিষ্ট মাসগুলিতে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক সুদের হার কমাতে অথবা অপরিবর্তিত রাখতে পারে বলে মনে করছে বিশ্বব্যাঙ্ক। তবে বিশ্ব ব্যাঙ্কের অনুমাম, আগামী আর্থিক বছর থেকে ভারতের অর্থনীতি ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করবে।