এবার ঘোরোতর সমস্যায় রিলায়েন্স গ্রুপের প্রধান অনিল অম্বানি। ইয়েস ব্যাঙ্ককাণ্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চেয়ে তাঁকে সমন পাঠিয়েছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। অবিলম্বে মুম্বইয়ে সংস্থার দফতরে হাজিরা হওয়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সূত্রের খবর ইয়েস ব্যাঙ্ক থেকে প্রচুর টাকা ঋণ নিয়েছিলেন অনিল অম্বানি। সেই সংক্রান্ত বিষয়ে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। ইয়েস ব্যাঙ্কের টাকা তছরুপের অভিযোগ উঠেছে তাঁর বিরুদ্ধে। ডাকা হয়েছে তাঁর সংস্থার আধিকারিকদেরও। 

আরও পড়ুনঃ করোনায় মৃত বোনের শেষকৃত্যের আর্জি জানিয়ে লাইভে ভেঙ্গে পড়লেন দাদা, দেখুন মর্মান্তিক ভিডিও

সংশয় রয়েছে রিলায়েন্স গ্রুপের প্রাধন অনিল অম্বানির হাজিরা নিয়ে। কারণ শারীরিক অসুস্থতার কারম দেখিয়ে হাজিরা হওয়ার  জন্য আরও সময় চেয়েছেন অম্বানি। তবে তাঁর সংস্থার আধিকারিকরা চলতি সপ্তাহেই মুম্বইয়ের ইডির দফতরে হাজিরা দেবে। নিয়ম বহির্ভূতভাবে লক্ষ লক্ষ টাকা ঋণ দেওয়ারা অভিযোগ উঠেছে ইয়েস ব্যাঙ্কের প্রতিষ্ঠা রানা কাপুরের বিরুদ্ধে। টাকা ফেরত পাওয়ার আসা নেই জেনেও একাধিক রুগ্নপ্রায় গোষ্ঠীকে অবাধে ঋণ দেওয়া হয়েছিল তাঁরই নির্দেশে। সেই তালিকা রয়েছে রয়েছে রিলায়েন্স গ্রুপের নামও। সূত্রের খবর ঋণের বিনিয়ম ব্যক্তিগত সুযোগ সুবিধে নিয়েছিলেন রানা কাপুর। অনিল অম্বানির সংস্থাকে ঋণ দেওয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ। রিলায়েন্স গ্রুপের প্রায় নটি সংস্থা ১২,৮০০ কোটি টাকা এনপিআরের জন্য অ্যাকাউন্ট খুলে ছিল। প্রচুর ঋণ দেওয়া হয়েছিল। সেই সব টাকা আদায় না হওয়াতেই চরম সমস্যায় পড়েছে ইয়েস ব্যাঙ্ক। 

আরও পড়ুনঃ ভারতে কামাল দেখাল সোয়াইন ফ্লু-ম্যালেরিয়া- এইচআইভির মেডিসিন, করোনাকে জিতে ফিরলেন ৩

ইয়েস ব্যাঙ্কের ভরাডুবির কারণে চরম ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে গ্রাহকদের। বর্তমানে ব্যাঙ্কের ডিজিটাল পরিষেবা পুরোপুরি বন্ধের মুখে। টাকা তোলার ক্ষেত্রেও  রিজার্ভ ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া জারি করেছে নির্দেশিকা। যারা জেরে একএকজন গ্রাহক মাত্র ৫০ হাজার টাকাই তুললে পারছেন। 

ইয়েস ব্যাঙ্কের সংকট কাটিয়ে তুলতে হাল ধরেছে কেন্দ্রীয় সরকার। লগ্নির বিষয়ে  রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংস্থাগুলির ওপর চাপ তৈরি করা হচ্ছে বলেই সূত্রের খবর। ইতিমধ্যেই ইয়েস ব্যাঙ্কে ৪৯ শতাংশ লগ্নি করবে বলে জানিয়েছে স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া। লগ্নির বিষয়ে আশ্বাস দিয়েছে আরও কয়েকটি বেসরকারি ব্যাঙ্ক। তবে সাধারণ মানুষের টাকা ইয়েস ব্যাঙ্কে লগ্নি করা হচ্ছে বলেও অভিযোগ তুলেছে বিরোধীরা। বিরোধীদের আরও অভিযোগ যেসব সংস্থা ইয়েস ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ নিয়েছিল তাদের থেকে কেন উদ্ধার করা হবে না টাকা। বিরোধীদের তোলা এই অভিযোগের উত্তর দিতেই কী কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ডেকে পাঠিয়েছে অনিল অম্বানিকে। তেমনই মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।