ভারতীয় খাদ্য সরবরাহকারী সংস্থা জোম্যাটো এবার বাড়ি বাড়ি অ্যালকোহল বা মদ সরবরাহ করার কথাও ভাবে বলে জানিয়েছে সংবাদ সংস্থা রয়টার্স। লকডাউনের তৃতীয় দফায় গত সোমবার ভারতে মদ বিক্রি চালু হতেই সারা দেশে যেভাবে লক্ষ লক্ষ লোককে মদের দোকানে লাইন দিতে দেখা গিয়েছে, যেভাবে রাজ্যে রাজ্যে একেকদিনে ৪০-৪৫ কোটি টাকার মদ বিক্রি হয়েছে, তাদে দেশের মদের এই উচ্চ চাহিদাকে কব্জা করতে চাইছে তারা। বিশেষ করে করোনভাইরাস লকডাউন চলাকালীন এই দিকে বিশেষ লাভ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে বলে ভাবছে সংস্থাটি।

লকডাউন চলাকালীন দেশের অধিকাংশ রেস্তোঁরাই আপাতত বন্ধ। অল্প কয়েকটি রেস্তোরাঁ থেকে খাবার সরবরাহ করছে জোম্যাটো। তাও রোগের ভয়ে অনেক মানুষই বাইরে থেকে খাবার অর্ডার করতে দ্বিধা করছেন। লকডাউনের সময় দেশে মুদিখানার সামগ্রীর চাহিদা দেখে খাদ্য সরবরাহের পাশাপাশি মুদিখানার সামগ্রীও  সরবরাহ করা শুরু করেছে জোম্য়াটো। এখন আরও এক দিকে পা বারাবার কতা বাবছে তারা।

গত ২৫ মার্চ দেশব্যাপী লকডাউন ঘোষণার দিন থেকে দেশে মদের দোকান বন্ধ ছিল। এই সপ্তাহে থেকে দোকানগুলি ফের খোলার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু বিভিন্ন জায়গাতেই আউটলেটগুলির বাইরে হাজার হাজার মানুষকে ভিড় করতে দেখা গিয়েছে। সেখানে সামাজিক দূরত্বের প্রোটোকল প্রয়োগ করতে পুলিশকে লাঠিচার্জ করতে হয়েছে। কোথাও ভিড় ঠেকাতে অ্যালকোহলের দাম মাত্রাতিরিক্ত বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। আবার মুম্বই-এর মতো শহরে দু'দিনের মধ্যে ফের মদের দোকান বন্ধ করে দিতে হয়েছে।

ভারতে এখনও অ্যালকোহল সরবরাহের জন্য কোনও আইনী বিধান নেই। তবে ইন্টারন্যাশনাল স্পিরিটস অ্য়ান্ড ওয়াইনস অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডিয়া (আইএসডাব্লুএআই) জোমাটো এবং অন্যান্য সরবরাহকারী সংস্থাদের সঙ্গে মিলে এই অবস্থার পরিবর্তনের জন্য চাপ দিতে শুরু করেছে সরকারকে। জোম্যাটো সংস্থার সিইও মোহিত গুপ্তা আইএসডাব্লুএআই-এর কাছে একটি এই বিষয়ে একটি ব্যবসায়িক প্রস্তাব দিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে।