প্রবল বৃষ্টি এবং তার কারণে ভূমিধস, আর তাতেই মায়ানমারে মৃত্যু হল অন্তত ৫১ জনের। মায়ানমারের মন রাজ্যে ভূমিধসের জেরে ধসের নীচে চাপা পড়ে থাকা মানুষকে উদ্ধার করার চেষ্টা করা হচ্ছে বলে খবর। উদ্ধারকার্যে নেমেছে দমকল  বাহিনী। 

বেশকিছুদি ধরে লাগাতার বৃষ্টিপাতের কারণেই শুক্রবার থেকেই মায়ানমারের ফুং-এ একাধিক স্কুল বন্ধ রাখা হয়েছে। পাশাপাশি ফুং, মউলামইয়াইন, মুডন, থানব্যুজায়াত, কাইকমারো, ইয়ে শহর প্রবল বৃষ্টিপাতের কারণে কার্যত ছিল জলমগ্ন। 

সূত্রের খবর, মায়ানমারে বেশ কয়েকদিন ধরেই চলছে প্রবল বৃষ্টিপাত। আর লাগাতার বৃষ্টির কারণেই মা-সাট মাউন্টেনে নেমেছে ধস।  সাধারণ মানুষের বাড়ি-ঘর, গাড়ি সবকিছুই চাপা পড়ে গিয়েছে ধ্বংসস্তূপের মধ্যে। খারাপ আবহাওয়ার কারণে উদ্ধারকার্য খানিকটা ব্যহত হওয়ার কারণে উদ্ধারকার্যে বেশ খানিকটা বেগ পেতে হচ্ছে উদ্ধারকারীদের। উদ্ধারকার্যে ব্যবহার করা হচ্ছে  বিভিন্ন লাইফ ডিটেক্টর যেমন থার্মাল ইমেজিং ক্যামেরা (টিআইসি)। 

এইমুহূর্তে উদ্ধারকাজ চালাচ্ছেন মায়ানমারের সেনা, দমকলকর্মী। সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া একাধিক ছবিতে দেখা গিয়েছে ধ্বংসস্তূপের তলা থেকে বের করে নিয়ে আসা হচ্ছে কাদা-মাটি মাখানো কিছু নিথর দেহ। কাদার স্তরের মধ্যে থেকে অনেকগুলি দেহ বের করার চেষ্টা করছেন উদ্ধারকারী দল। প্রবল বৃষ্টির জেরে ক্ষতিগ্রস্থ  একাধিক এলাকায় ত্রাণসামগ্রী পাঠানোর জন্য সেনাবাহিনী প্রস্তুত করা হয়েছে। জলমগ্ন এলাকাগুলি থেকে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে একাধিক পরিবারকে।