বিয়ে বাড়ি থেকে করোনায় সংক্রমিত ৩৭। অস্ট্রেলিয়ার নিউ সাউথ ওয়েলেসের মেডিক্যাল অফিসার সাংবাদিক সম্মেলন করে এই খবর জানিয়েছেন। ওই বিয়েবাড়িতে আমন্ত্রিত বাকি সদস্যরাও যেন অবিলম্ব নমুনা পরীক্ষা করেন, তাঁরও আবেদন জানিয়েছে প্রশাসন। এই খবর সামনে আসার পরই মুধচন্দ্রিমা থেকেই উদ্বোগ প্রকাশ করেন নবদম্পতি। তাঁরা সোশ্যাল মিডিয়াতেই জানিয়েছেন মধুচন্দ্রিয়ায় থাকাকালীনই তাঁরা তাঁদের বিয়েতে আমন্ত্রিত অতিথিদের করোনায় আক্রান্ত হওয়ার খবর পেয়েছেন। যা তাঁদের উদ্বেগ আরও বাড়িছে। আক্রান্ত ৩৭ জনের মধ্যে নবদম্পতির আত্মীয়সজনও রয়েছে বলে জানিয়েছেন।  

গত ৬ মার্চ এই বিলাশবহুল রিসর্টে বিয়ের আসর বসেছিল। সেখানেও জড়ো হয়েছিলেন অব্যাগতরা। কিন্তু কিছুদিন থেকেই অভ্যাগতদের মধ্যে করোনায় আক্রান্তের সন্ধান পাওয়া যায়। মধুচন্দ্রিমায় থেকে নবদম্পতি জানিয়েছেন, তাঁরা জীবনের একটি বিশেষ মুহূর্তর খুশি ভাগ করে নেওয়ার জন্যই ডেকেছিলেন কাছের মানুষদের। কাছের মানুষদের উপস্থিতিতে তাঁদের বিশেষ দিনটি আরও বেশি বর্ণময় হয়েছিল। কিন্তু তা থেকে যে এই মারাত্মক ভাইয়াসে আক্রান্ত হবেন আভ্যাগতরা তা তাঁরা ধারনাও করতে পারেননি। এই কারণের জন্য দুখ প্রকাশ করে বাকি অতিথিদেরও নমুনা পরীক্ষা করার আবেদন জানিয়েছেন নববধূ। তাঁরা আরও বলেছেন বর্তমানে বেশ কিছুটা সমস্যার মধ্যে দিয়ে চলছে অস্ট্রেলিয়া।নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে ভ্রমণের ওপর। নিষেধ করা হয়েছে জমায়েতের ওপরও। নিজেদের ও পরিজনদের স্বাস্থ্যের খাতিরে তা অবস্যই মেনে চলা উচিৎ। 

বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১,১২২। যার মধ্যে সবথেকে বেশি আক্রান্ত রয়েছেন নিউ সাউথ ওয়েলেসে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে ইতিমধ্যেই জারি করা হয়েছে একাধিক নিষেধাজ্ঞা। বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে দেশের একাধিক সীমান্ত। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখাতে একটি প্রদেশ থেকে অন্য প্রদেশে যাওয়ার ওপরও জারি করা হয়েছে সতর্কতা। অন্যদিকে বিশ্বে ক্রমশই ভয়ঙ্কর আকার নিচ্ছে এই করোনা ভাইরাস। বিশ্বে আক্রান্তের সংখ্যা ৩ লক্ষ ছাড়িয়েছে। মৃতের সংখ্যা আট হাজারের কাছাকাছি। ইতালিতে মৃতের সংখ্যা পাঁচ হাজারের বেশি।