কথাটা দেখে বা শুনে অবাক হওয়ারই কথা। কারণ ওই টাকায় অনেকের এক বেলার খাবারও হয় না।  অথচ সেই‌ টাকাতেই বিক্রি হচ্ছে বাড়ি। এই অবিশ্বাস্য সেল চলছে ইতালির কলাবারিয়া এলাকার ছোট্ট শহর চিনকুইফ্রন্ডে।    
জানা গিয়েছে,  ‘‌অপরেশন বিউটি’‌ নামে একটি প্রকল্প নিয়েছেন শহরের মেয়র। স্থানীয়রা জানিয়েছেন, সাধারণত যুবক যুবতীরা চাকরির জন্য এই ধরণের শহর ছেড়ে মূল শহরে চলে যান। তাই এখানে বেশিরভাগ বাড়িই খালি পড়ে থাকে। 
তাই নতুন করে শহর গড়তে চাইছে প্রশাসন। মিশেল কোনিয়া, শহরের মেয়র জানিয়েছেন, শহরের একটি অংশ যাতে একেবারে জনশূন্য না হয়ে পড়ে, সেই কারণেই এই প্রকল্প নেওয়া হয়েছে।
ইতালির এই শহরটিতে একজনও করোনা আক্রান্ত নেই। মেয়র জানিয়েছেন, ‘‌আমাদের শহরের একদিকে পাহাড়, অন্যদিকে দুই সমুদ্র। শহরের মধ্যে থেকে মাত্র ১৫ মিনিট গাড়িতে গেলেই সমুদ্রের দেখা মেলে। আছে একটি ছোট নদীও। সব মিলিয়ে মনোরম পরিবেশ। কিন্তু একটি জেলা একেবারে জনশূন্য হয়ে পড়ে আছে। পাহাড়ের কোলে সেইসব বাড়ি দেখভালের অভাবে ধুঁকছে। আমরা চাই সেখানে লোক এসে থাকুক।’‌
ইতালি পৃথিবীর অন্যতম করোনা আক্রান্ত দেশ হলেও দীর্ঘসময় ধরে ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে দ্রুত উন্নতি করেছে। লকডাউনে সে দেশে উঠে গিয়েছে। পর্যটকদের জন্য খুলে দেয়া হয়েছে সীমান্ত। 
ইউরোপের যেকোনো দেশ সবারই স্বপ্নের জায়গা। আর ইতালির মতো দেশে বাড়ি কিনতে লাগার কথা কাড়ি কাড়ি টাকা। কিন্তু, ব্যতিক্রম ঘটেছে ইতালিতে। করোনার ভয়ে নয়, মূলত জীবিকার সন্ধানে ইতালির বাসিন্দারা গ্রামাঞ্চল ছেড়ে শহরের দিকে চলে যাচ্ছেন। সেসব বাসিন্দাদের পরিত্যক্ত বাড়ি পুনর্নির্মাণ করে বসবাসের উপযোগী করা এবং সেসব অঞ্চলে বসবাসের ধারা অব্যাহত রাখতেই ইতালির সরকার এমন একটি উদ্যোগ হাতে নিয়েছে।
বাড়িগুলো নিতে গেলে ক্রেতাকে তাই একটি প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। যার মধ্যে সেখানে বসবাস করার শর্ত ছাড়াও থাকছে বাড়িগুলি সংস্কার করার শর্ত।