করোনা ভাইরাসের হানায় ভয়ে গুটিয়ে রয়েছে বিশ্ববাসী। গোটা বিশ্বের কাছে এক ভয়ঙ্কর নাম এই করোনা। এই নামটা শুনলেই প্রত্যেকেই যেন আতঙ্কিত। মুহূর্তের মধ্যে একজনের থেকে আরেকজনের শরীরে ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস।  মানুষের নিঃশ্বাস প্রশ্বাসের সঙ্গেই ছড়িয়ে যাচ্ছে এই রোগের জীবানু। কোনওভাবেই আটকানো যাচ্ছে না এই ভাইরাসকে।  সার্সের থেকে ভয়ঙ্কর আকার নিয়েছে এই করোনা ভাইরাস।  

 

কিছুদিন আগে করোনায় মৃত্যু হয়েছিল উহানের চিকিৎসকের। যিনি কিনা করোনো হানার ইঙ্গিত  দিয়ে চিনা প্রশাসনের রোষের মুখে পড়েছিলেন। দি ওয়েংলিয়াং নামের ওই চিকিৎসক করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েই পরে মারা যান। এবার সেই উহানের খবর করার পরই নিখোঁজ হলেন চেন কুইশি নামের এক সাংবাদিক।  চিকিৎসকের ঘটনাটি সামনে আসার পরই ক্ষোভে ফুঁসছিলেন চিনের নাগরিকরা। এবার নিখোঁজ সাংবাদিকের খবর প্রকাশ্যে আসতে সেই ক্ষোভ যেন আরও বেড়ে গেল। করোনা আক্রান্তের উহানের বর্তমান কী অবস্থা, সেখানকার ভয়াবহ পরিস্থিতি এবং বাস্তব চিত্রটা তুলে এনেছিলেন চেন নামের ওই সাংবাদিক। কিন্তু গত কয়েকদিন ধরেই নিখোঁজ হয়ে যান এই সাংবাদিক। তার সঙ্গে থাকা আরও এক সাংবাদিক ফ্যাং বিনও কয়েকদিন ধরে নিশ্চুপ হয়ে গেছেন।

আরও পড়ুন-সার্সকে পিছনে ফেলে এগিয়ে ভয়ঙ্কর করোনা ভাইরাস, মৃত্যু সংখ্যা ৮০০-র বেশি...

দি ওয়েংলিয়াং নামের ওই চিকিৎসক যখন করোনা ভাইরাসের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন তখন প্রশাসন বিষয়টি উড়িয়ে দিয়েছিল। ভুয়ো খবর ছড়ানোর জন্য চিকিৎসককে কঠোর শাস্তিও দেওয়া হয়। এবার সাংবাদিক নিখোঁজ হওয়ার পর আবারও যেন প্রশাসনের দিকেই আঙুল উঠছে। তবে কি উহানের বাস্তব চিত্র সকলের সামনে তুলে আনার জন্য প্রশাসনের রোষের মুখে পড়তে হল  সাংবাদিক চেন-কে।  ২৪ জানুয়ারি থেকে উহান ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় বাস্তব চিত্র তুলে ধরেছিল সাংবাদিক চেন ও ফ্যাং।  সেখানকার  ভয়ানক সমস্ত ছবি, ভিডিও শেয়ার করেছিলেন চেন। এবং একদিকে মারণ রোগের ভয় আর অন্যদিকে চিন প্রশাসনের ভয়ে শিটিয়ে ছিলেন চেন। যদিও ভিডিওটিতে তিনি জানিয়েছেন, যতদিন জীবিত থাকব যেটা সত্যি সেটাই বলব, মরতে কোনও ভয় নেই। তারপর থেকে নিখোঁজ হয়ে যান এই সাংবাদিক। তবে অনেক খোঁজাখুঁজির পর জানা গেছে, কোয়ারেন্টাইন করা হয়েছে চেনকে। কোয়ারেন্টাইনের নামে তাকে আটক করেছে চিনা প্রশাসন।

 

পেশায় আইনজীবী চেন। কিন্তু এর পাশেও সাংবাদিকতার প্রবল নেশাও রয়েছে তার। করোনা ভাইরাসের খবর পেয়েই নিজের প্রাণের ঝুঁকি না নিয়ে উহানে চলে আসেন চেন। আর এসেই পরিস্থিতি খতিয়ে দেখে বাস্তব চিত্র তুলে ধরেন তিনি। যত দিন যাচ্ছে হু হু করে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। মাত্র ২৪ ঘন্টার মধ্যে ৮৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। ইতিমধ্যেই ৯০০ জনের মৃত্যু হয়েছে।