করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নিয়ে রীতিমত নাজেহাল  পুতিনের দেশ। আক্রান্ত দেশগুলির ক্রম তালিকায় রাশিয়ার স্থান তৃতীয়। আক্রান্তের সংখ্যা আক্রান্তের সংখ্যা ৪ লক্ষেরও বেশি। পাঁচ হাজারেরও বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে।  এবার করোনার পাশাপাশি মুখোমুখি হচে হচ্ছে নতুন বিপদের। রাশিয়ায় দাপিয়ে বেড়াচ্ছে রক্ত চোষা কীটের দল। স্থানীয় একটি সংবাদ মাধ্যমের খবর অনুযায়ী সার্বিয়ার এই কিটের আক্রামণ আগের তুলনায় প্রায় ৪২৪ শতাংশ বেড়েছ। রাশিয়ার সরকারও খবের সত্যতা স্বীকার করে নিয়েছে।

 

স্থানীয় একটি সংবাদ মাধ্যমের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে পোকাগুলি মূলত ঘাসের মধ্যে থাকে। স্থানীয়দের ওপর আক্রামণ করে আবারও ঘাসেই আশ্রয় নেয়। স্থানীয় চিকিৎসকরা জানিয়েছেন পোকা গুলি মানুষের রক্ত পান করে। তারপরেই আক্রান্ত ব্যক্তি সংক্রমিত হয়।  শীতের কারণে দ্রুত প্রজোনন করতে সক্ষম এই পোকাগুলি। পাশাপাশি সংশয় প্রকাশ করা হয়েছে, যাদেরও এই পোকাগুলি দংশন করেছে তাঁরা সকলেই আক্রান্ত নন। তবে ভুক্তভোগীরা এনসেফালাইটিসে আক্রান্ত হতে পারেন। অথবা তাঁদের মস্তিস্কের ক্ষতিও হতে পারে। স্নায়ুতন্ত্রকে বিকল করে দিয়ে পারে বলেও আশঙ্কা করা হয়েছে। আক্রান্তরা যদি প্রয়োজনীয় চিকিৎসা না পান তাহলে লিমি রোগের প্রকোপেও পড়েতে পারেন বলে সাবধান করা হয়েছে। 

রক্তচোষা পোকার প্রকোপ সব থেকে বেছেড়ে সাইবেরিয়ায়। কম জনসংখ্যার সাইবেরিয়াতে করোনার প্রকোপও যথেষ্ট বেশি। তাই নতুন করে রক্তচোষা পোকার আক্রমণে আক্রান্তদের চিকিৎসা করাতে যথেষ্ট বেগ পেতে হচ্ছে বলেও জানান হয়েছে স্থানীয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে। 

শুধু ভারত নয় পাকিস্তান জঙ্গি পাঠাচ্ছে আফগানিস্তানেও, ভয় ধরানো রিপোর্ট রাষ্ট্র সংঘের ..

বাজি ভর্তি আনারস খাইয়ে গর্ভবতী হাতিকে হত্যা, নৃশংসতার চরম নিদর্শন কেরলে ...

শেষ ১৬ দিনে দেশে আক্রান্তের সংখ্যা লক্ষাধিক, আনলক আরও বিপদ ডেকে আনবে কি ...

প্রাথমিকভাবে জানান হয়েছে, রক্তচোষা কীটের হাতে আক্রান্ত হয়েছেন ৪৩৩৪ জন। আক্রান্তের মধ্যে ১ হাজারেও বেশি শিশু রয়েছে। আর ৩৬ শতাংশই লিমি রোগে আক্রান্ত।