সবথেকে সুখী দেশের তালিকায় শীর্ষস্থানে অবস্থান করছে ডেনমার্ক। কিন্তু জানেন কি ভুটানই একমাত্র যেখানে রয়েছে 'মিনিস্ট্রি অব হ্যাপিনেস'! হ্যাঁ, সেখানকার মানুষের সুখের খবর রাখার জন্য রয়েছে আলাদা একটি মন্ত্রণালয়। 

পাহাড় ও উপত্যকায় ঘেরা দেশ ভুটান। প্রাচীনকালে পাহাড়ি উপত্যকায় অবস্থিত ভুটান ছিল কতকগুলি রাজ্যের সমষ্টি। পরবর্তীকালে রাজ্যগুলি একত্রিত হয়ে জন্ম হয় এক ধর্মীয় রাষ্ট্রের। জানলে অবাক হবেন ভুটানে কোনও ভিখারি নেই। এমন কোনও মানুষ নেই, যারা রাস্তায় দিন কাটান। কোনও মানুষ যদি কোনও কারণবশত গৃহহীন হন, তাহলে কেবলমাত্র রাজার শরণাপন্ন হলেই হতে পারে মুশকিল আসান। এছাড়া সামাজিক অবস্থান নির্বিশেষে যেকোনও মানুষ পেতে পারেন বিনামূল্যে চিকিৎসা পরিষেবাও। 

আর সবথেকে আকর্ষণীয় যে বিষয়টি, তা হল, রাষ্ট্রের আভ্যন্তরীন সুখ ও শান্তি বজায় রাখার জন্য ২০০৪ সালে এই দেশে গঠন করা হয়েছে গ্রস ন্যাশনাল হ্যাপিনেস কমিটি। এই কমিটির অন্তর্গত রয়েছে গ্রস ডোমেস্টিক প্রোডাক্ট, যার কাজ হল, রাষ্ট্রের মোট জাতীয় সুখকে পরিমাপ করা। এই সুখ মন্ত্রণালয়ে রাষ্ট্রের মানুষের জীবনযাত্রার মান, আর্থিক সামর্থ্য এবং মানসিক অবস্থার কথাও তুলে ধরা হয়। আর এগুলির মধ্যে ভারসাম্যের নিরিখে রাষ্ট্রের মানুষের সুখ পরিমাপ করা হয়।