Asianet News Bangla

প্যারিসে বাজেয়াপ্ত হচ্ছে ভারতের ২০টি সম্পদ, ব্রিটিশ তেল সংস্থার সঙ্গে তীব্র কর বিবাদ

প্যারিসে বাজেয়াপ্ত ভারত সরকারের ২০টি সম্পত্তি

দখল নিল স্কটিশ তেল উত্তোলনকারী সংস্থা 'কেয়ার্ন এনার্জি'

এর পিছনে রয়েছে একটি পুরোনো কর বিতর্ক

ভারতকে আগেই ১.২ বিলিয়ন ডলার দেওয়ার আদেশ দিয়েছিল আন্তর্জাতিক আদালত

Cairn Energy freezes 20 Indian govt assets in Paris after court order ALB
Author
Kolkata, First Published Jul 8, 2021, 12:36 PM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

ফিনান্সিয়াল টাইমস-এর এক প্রতিবেদনে অনুয়ায়ী, ফরাসী আদালতের নির্দেশে প্যারিসে ভারত সরকারের অন্তত ২০টি সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করতে চলেছে স্কটিশ তেল উত্তোলনকারী সংস্থা 'কেয়ার্ন এনার্জি'। আন্তর্জাতিক আদালতের নিষ্পত্তি আদেশ মেনেই এই নির্দেশ দিয়েছে ফরাসী আদালত। এর আগে আন্তর্জাতিক আদালত কেয়ার্নকে ১.২ বিলিয়ন ডলার দেওয়ার আদেশ দিয়েছিল আন্তর্জাতিক আদালত। জানা গিয়েছে, চলতি বছরের ১১ জুন তারিখে ফরাসী আদালত ভারত সরকারের সম্পত্তি হস্তান্তরের বিষয়ে আদেশ জারি করেছিল। বুধবার সেই বিষয়ে আইনি প্রক্রিয়া শেষ হয়েছে।

কেয়ার্ন এনার্জি সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, তারা কার্যকরভাবে ভারত সরকারের ২০ টি সম্পত্তির মালিকানা স্থানান্তর করবে। এই সম্পত্তিগুলির বেশিরভাগই বিভিন্ন ফ্ল্যাট বাড়ি। যার সম্মিলিত মূল্য ২ কোটি ডলারেরও বেশি। ২০২০ সালের ডিসেম্বরে এক আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনাল বলেছিল, ভারত সরকার কর আরোপের মাধ্যমে, ২০১৪ সালের যুক্তরাজ্য-ভারত দ্বিপাক্ষিক বিনিয়োগ চুক্তির দায়বদ্ধতা লঙ্ঘন করেছে। ভারত সরকারকে ওই আন্তর্জাতিক আদালত আংশিকভাবে পাওনা আদায়ের জন্য সুদ-সহ লভ্যাংশ, ট্যাক্স ফেরত এবং শেয়ার বিক্রয় করার অর্থ বাবদ কেয়ার্ন এনার্জিকে ১.২ বিলিয়ন ডলার দিতে বলেছিল।

তবে সেই আদেশ মানতে অস্বীকার করেছিল ভারত সরকার। অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ বলেছিলেন, ট্যাক্সের সার্বভৌম অধিকার সম্পর্কে যদি কোনও প্রশ্ন থাকে তবে সেই বিষয়ে সরকার আবেদন করবে। এই আবেদন করাটা সরকারের দায়িত্ব। এরপর কেয়ার্ন সংস্থা, মামলাটি নিবন্ধিত ও স্বীকৃত করতে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, নেদারল্যান্ডস, কানাডা, ফ্রান্স, সিঙ্গাপুর, জাপান, সংযুক্ত আরব আমিরশাহি এবং কেম্যান দ্বীপপুঞ্জের আদালতে স্থানান্তরিত করেছিল।

চলতি বছরের শুরুতে কেয়ার্ন সংস্থার পক্ষ থেকে ভারত সরকারকে চিঠি দিয়ে বলা হয়েছিল, আদালতের নির্দেশ যদি ভারত না মানে এবং অর্থ ফেরত না দেয়, তবে তারা ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট, রাষ্ট্রীয় মালিকানাধীন সত্তার ভাড়া, বিমান ও জাহাজের মতো বিদেশে থাকা ভারত সরকারের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করতে পারে। তারা সাফ জানিয়েছিল, মামলার রায় এখন চূড়ান্ত। ভারত সরকারের সেই রায় মেনে চলার জন্য দ্রুত অগ্রসর হওয়াটা জরুরি। বিভিন্ন বৈশ্বিক আর্থিক প্রতিষ্ঠান যারা কেয়ার্ন এনার্জির শেয়ারহোল্ডার এবং যারা ভারতে একটি ইতিবাচক বিনিয়োগের আবহাওয়া দেখতে চান তাদের জন্য এটা গুরুত্বপূর্ণ।

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios