১১ই জুন বিশ্ব জনসংখ্যা দিবস। বিশেষ করে এই দিন পালন করার পেছনে রয়েছে কোন উদ্দেশ্য, জেনে রাখা প্রয়োজন। অতিমাত্রায় বিশ্বজুড়ে বাড়ছে জনসংখ্যায়। সেই মাত্রাকে আয়ত্বে রাখত জন্যই নানা স্থানে আলোচনা সভা, সচেতনতার মাত্রা বাড়িয়ে তোলার কাজ চলছে এখন পুরোদমে। ফলেই সেই দিকে নজর দিয়েই এবার পরিবার পরিকল্পনা করে ফেলা উচিত। তবে কোন যুক্তিতে একটি পরিবারকে পরিকল্পনা করার বিষয় বোঝানো যেতে পারে সেই নিয়ে বিস্তারিত এক তথ্য পেশ করল ইউএনএফপিএ, কী বলা আছে এই তথ্যে জেনে নিনঃ
১. পরিবার পরিকল্পনা কখনই কোনও নির্দিষ্ট জাতি, ধর্ম, এলাকা ভিত্তিক হতে পারে না। 
২. পরিবার পরিকল্পনা করা সংস্থাগুলির কাছে যাতে মানুষ পৌঁছয় তা সরকার দ্বারা নিশ্চিত করা।
৩. পরিবার পরিকল্পনার সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত তথ্য সম্ভ্রমের সঙ্গে বোঝানো উচিত।
৪. পরিষ্কার যৌক্তিকতার সঙ্গে সকলকে বোঝাতে হবে যে এটা কতটা প্রয়োজন।
৫. সবার সবাইকে সঠিক পদ্ধতিতে নিয়ে আসার জন্য বুঝিয়ে দেওয়া দরকার এটার প্রয়োজনিয়তা।
৬. পাশাপাশি স্বাস্থ্য, শিক্ষার দিকেও নজর দিতে হবে।
৭. জনসংখ্যা বাড়লে কী কী সমস্যার সন্মুখীন হতে পারে সকলে তার আভাস দিতে হবে।
৮. ব্যক্তিগত তথ্য প্রকাশ্যে না আনার প্রতিশ্রুতি দিতে হবে। 
৯. সকলকে এই বিষয় সজাগ করে তুলতে হবে। তবেই সেখান থেকে মিলবে সমাধান সূত্র।