কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করে দেবেন, এমনটাই ঘোষণা করেছিলেন নরেন্দ্র মোদী। কিন্তু ঠিক কীসের ভিত্তিতে এমন প্রতিশ্রুতি দিলেন তিনি তারই ব্যাখ্যা চাইল ইউরোপীয় ইউনিয়ন।  

ভারতের কাছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ব্যাখ্যা চেয়েছে যে, নরেন্দ্র মোদী কীভাবে ২৫ লক্ষ কোটি টাকা কৃষি ও গ্রামোন্নয়ন খাতে বরাদ্দ করেছেন, এবং কীসের ভিত্তিতে ধরে নেওয়া হল যে ২০২২-এর মধ্যে সেই অর্থ ১০০ লক্ষ কোটিতে গিয়ে দাঁড়াবে। সোমবার জেনেভায় অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড ট্রেড অর্গানাইজেশনের বৈঠকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন-এর পাশাপাশি বেশ কয়েকটি সদস্য দেশ এই প্রশ্ন তুলেছিল। 

প্রসঙ্গত ভারত মূলত কৃষিপ্রধান অর্থনীতির ওপর নির্ভরশীল। কিন্তু ভারতের ধীর গতি অর্থনীতির ওপর ভিত্তি করে কৃষকদের আয় আগামী তিন বছরে দ্বিগুণ করার কথা ঘোষণা যে মোদী করেছেন তা কীভাবে রূপায়িত হবে সেই প্রশ্নই উঠেছে। তবে শুধু ভারত নয়, আমেরিকার কাছেও তাঁদের কৃষি নীতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে ইউরোপীয় ইউনিয়ন। চিনের সঙ্গে শুল্ক যুদ্ধ শুরু হওয়ার পর মার্কিন অর্থনীতি যে খানিকটা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে সেকথা বলাই বাহুল্য। আর সেই কারণেই মার্কিন অর্থনীতির দিক থেকে মানুষের নজর খানিকটা ঘোরাতেই নানাপ্রকার চেষ্টা চালাচ্ছেন ট্রাম্প। এই প্রসঙ্গে ইউরোপীয় ইউনিয়ন প্রশ্ন তুলেছে যে, যখন সারা বিশ্বে ফসল উৎপাদনের সর্বোচ্চ মাত্রা ও তার বাজার-মূল্য স্থির করে দেওয়া হয়েছে, তখন কৃষকের আয় কীভাবে এতটা পরিমাণ বাড়তে পারে।