অবিকল মানুষের মতো ফোলা ফোলা ঠোঁট এবং একেবারেই মানুষের মতো দাঁত। এরকমই অদ্ভূত বৈশিষ্ট থাকা একটি মাছের ছবি গত কয়েকদিন ধরে ইন্টারনেটে ঝড় তুলেছে। 'রাফনাশির' নামে এক নেটিজেন টুইটারে ওই মাছের ছবিগুলি শেয়ার করেন। তিনি দাবি করেছিলেন এটি মালয়েশিয়ায় ধরা পড়া একটি 'ট্রিগার ফিশ'-এর ছবি। তবে ছবিটির সত্যতা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন অনেকেই। সত্যিই কি এরকম মাছ হয়, কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা?

মানুষের মতো ঠোঁট এবং দাঁত থাকা এই মাছের ছবি ভাইরাল হতে বেশি সময় নেয়নি। গত ২ জুলাই ছবিটি পোস্ট করেছিলেন 'রাফনাশির'। তারপর থেকে এই টুইটটি প্রায় ১৫ হাজার মানুষ লাইক করেছেন। আর রিটুইট হয়েছে প্রায় ৯ কোটিবার। অনেকেই এই মাছের ছবিটি নিয়ে ফটোশপে মজার মজার ছবিও বানিয়েছেন। তবে অনেকেই সত্যিই মাছটির ঠোঁট ও দাঁত এইরকম মানুষের মতো কিনা, তাই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন।

এশিয়ানেট নিউজ বাংলাও ছবিটির সত্যতা যাচাই না করতে পারায়, সংবাদটি পরিবেশন করেনি। তবে সম্প্রতি বিশেষজ্ঞরা সব দ্বিধা দ্বন্দ্বের অবসান ঘটিয়েছেন। সিডনি বিশ্ববিদ্যালয়ের সামুদ্রিক পরিবেশবিদ ডেভিড বুথ বলেছেন, গ্রেট বেরিয়ার রিফের কাছাকাথি এলাকার সমুদ্রে ট্রিগার ফিশ দেখা যায়। তাদের বাসায় হামলা হবে আশঙ্কায় তারা ডাইভার-দের আক্রমণ করে। তাদের দাঁত বেশ বড় বড় হয়। তবে তা কখনই, ছবিতে যেমন দেখানো হয়েছে, সেইরকম মানুষের মতো নয়। তাই তাঁর পরিষ্কার মত ছবিগুলি ভুয়ো, সম্ভবত ফটোশপের কারিকুরিতে তৈরি করা।

ডেভিড বুথ আরও জানিয়েছেন, এই জাতীয় মাছ সাধারণত ভারত-প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলে দেখা যায়। অন্তত ৪০টি বিভিন্ন প্রজাতির ট্রিগার ফিশের কথা জানা গিয়েছে। এই মাছগুলির বেশিরভাগেরই মাথা হয় বড়, আর দেহ হয় ডিম্বাকৃতির। আর শিরদাঁড়া থাকে দুটি, যার থেকে তাদের নাম হয়েছে ট্রিগার ফিশ। বন্দুকের যেমন ট্রিগার টিপলে তবে গুলি ছুটে যায়, তেমনই একের প্রথম শিরদাঁড়াটি ভাঁজ হলে তবেই দ্বিতীয় শিরদাঁড়াটি বেরিয়ে আসে।

কাজেই সামুদ্রিক পরিবেশ বিশেষজ্ঞদের মত অনুসারে, ওই ছবিগুলি অবশ্যই ভুয়ো। ট্রিগার ফিশ-এর দাঁত ও ঠোট বড় বড় হলেও এবিকল মানুষের মতো হয় না।