ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ইউনান প্রদেশের একটি গ্রামে। গ্রামের শেষপ্রান্তে রয়েছে মদ তৈরির একটি কারখানা। সেখানে গ্রামের তৈরি ভুট্টা দিয়ে বানানো হয় দেশি ওয়াইন বা মদ। রাতের অন্ধকারে কারখানার দরজা ভেঙ্গে ওই কারখানায় প্রবেশ করে একদল হাতি। সেই দলে ছোট থেকে বড় সব বয়সেরই সদস্য ছিল। সেই সুরার কারখানায় ঢুকে মনের সুখে তৈরি করে রাখা ৩০ লিটার মদ উড়িয়ে দেয় এই ১৪টি হাতির একটি পাল।

আরও পড়ুন- কী করে করোনার হাত থেকে রক্ষা করবেন আপনার বাড়ির বয়স্ক সদস্যদের, রইল তারই টিপস

ব্যস যেমন কাজ তেমন ফল। ৩০ লিটার মদ সাবার করে আর কি সুস্থ থাকা যায়। এদিক যায় কি সেদিক যায়। মাতাল হয়ে গ্রামের রাস্তায় রীতিমতো তান্ডব চালিয়ে ধীরে ধীরে জঙ্গলে প্রবেশ করে ওই মাতাল হাতির পাল। জঙ্গলের রাস্তা অতিক্রম করে নেশার ঘোরে পৌঁছে গিয়েছিল চা বাগানেও। সেখানে গিয়ে চা বাগানে তান্ডব চালিয়ে বহু ক্ষতি করে। এরপরে দলের সব থেকে ছোট দুটো সদস্য নিজেদের সামলাতে না পেরে চা বাগানেই ঘুমিয়ে পড়ে।

আরও পড়ুন- করোনা আতঙ্কে পালাচ্ছে মানুষ, মল্লযুদ্ধতে ব্যস্ত দুই ড্রাগন ভিডিওতে মজলো নেট দুনিয়া

 

এই পুরোও ঘটনাটি এলাকার সিসিটিভিতে ধরা পড়েছিল যার ছবি রীতিমত ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। একই সঙ্গে মাতাল ঘুমন্ত হাতির ছবিগুলি টুইটারে জুজু বিংবিং নামের অর্যাকাউন্ট থেকে শেয়ার করা হয়। বিংবিং একজন ভ্রমণ ফটোগ্রাফার। এখনও পর্যন্ত এই পোস্টটি এক লাখ ৪০ হাজার লাইক পেয়েছে। সিনহুয়াংবাানা ডাই প্রদেশের মেংহাই গ্রামের লোকেরা দাবি করেছেন যে ১৪ টি হাতির মধ্যে দু'জনই স্টোর রুমে হৈচৈ ফেলেছিল এবং মদ খেয়েছিল। টুইটারে ভাইরাল হওয়ার পরে ইউনান প্রদেশের কর্মকর্তারা প্রকাশ করেছিলেন যে ঘটনাটি বেশ কয়েকদিন আগের। যা এখন প্রকাশ হওয়ায় আবারও ভাইরাল হয়।