ভাবুন তো  বরফের যুগটি ঠিক কতটা শীতল ছিল ? প্রাচীন সেই বিশ্বে কি  শুধুই বরফ আর বরফ ছিল ? কোনও গাছপালা পশু পাখি কিচ্ছু ছিল না? এসব প্রশ্নের উত্তর খুঁজে পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। 

সমুদ্র প্লাঙ্কটন জীবাশ্ম ও জলবায়ুর মডেলগুলি নিয়ে ক্রমাগত পর্যালোচনা আর গবেষণা করার পর বিজ্ঞানীরা শেষ বরফের যুগ নিয়ে একটি স্থির সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে পেরেছেন। বিজ্ঞানীদের মতে সর্বশেষ বরফের যুগটি উত্তর আমেরিকা, দক্ষিণ আমেরিকা, ইউরোপ ও এশিয়া জুড়ে বিস্তৃত ছিল। তবে সব জায়গায় সমান ছিল না বরফের স্তর। এই বরফের যুগটি ২৩ থেকে ১৯ হাজার বছর আগে ছিল। আর সেই সময় বিশ্বের গড় তাপমাত্রা ছিল ৭.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। যা ২০১৯ সালের তুলনায় সাত ডিগ্রি সেলসিয়াস কম ছিল বলেও দাবি করেছেন বিজ্ঞানীরা। 

তবে সেই সময়ও বিশ্বের সর্বত্র এক তাপমাত্রা ছিল না। তাপমাত্রার অসঙ্গতিও খুঁজে পেয়েছেন তাঁরা।  তবে স্বাভাবিকভাবেই মেরু প্রদেশগুলিতে তীব্র ঠান্ডা ছিল। তবে গ্রীষ্ণমণ্ডলগুলি তুলনামূলকভাবে কম  গরম ছিল। বিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন জুপ্লাঙ্কটন ও অন্যান্য সংরক্ষিত কাঠামোর জীবাশ্ম পর্যবেক্ষণ ও জলের তলার তাপমাত্রা পরিবর্তনের প্রক্রিয়া পরীক্ষা করে এই সিদ্ধান্তে এসেছেন। 

বিজ্ঞানীরা আরও জানিয়েছেন বিশ্ব জলবায়ু মডেল সিমুলেশনগুলির সঙ্গে বৈশ্বিক তাপমাত্রা খুঁজে বের করার জন্য তাপমাত্রা খুঁজে বার করার জন্য তথ্যটি জাস্টস্পোড করা হয়েছিল। গবেষক দলের প্রধান, যিনি অ্যারিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক জেসিকা টের্নি দাবি করেছেন, আগামী দিনে কী গবে তা পর্যালোচনা করতেও এই তথ্য কাজে লাগবে।  বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন বরফের যুগটি  ১১৫,০০০ থেকে ১১,০০০ বছর স্থায়ী হয়েছিল। আর ওই সময়ও কিছু স্তন্যপায়ী প্রাণী ছিল পৃথিবীতে। কারণ ওই প্রাণীগুলি প্রবল শীত মানিয়ে নিতে পেরেছিল বলেই টিকে ছিল। আর প্রাণীর তালিকায় ছিল ম্যামথ, ম্যাস্টোডনসের মত প্রাণীরা। বিজ্ঞানীরা আরও দাবি করেছেন যে বরফের যুগে মানুষ প্রথম উত্তর আমেরিকায় গিয়েছিল। সেই সময় সমুদ্র অনেক কম ছিল। তাই প্রাচিন মানুষ একটি সেতু দিয়ে সাইবেরিয়াকে আলাস্কার সঙ্গে যুক্ত করতে পেরেছিল।