জাহাজ থেকে তেল ছড়িয়ে পড়ছে মরিশাসের আশেপাশে। যারজন্য পরিবেশগতভাবে জরুরি অবস্থা জারি করতে হয়েছে। গত ৩দিন ধরে ভারত মহাসাগরে ছড়িয়ে পড়ছে চার হাজান টন তেল। পরিস্থিতি মোকাবিলায় দেবদূতের ভূমিক নিল ভারতের ধ্রুব হেলিকপ্টার। 

 

 

জানা গিয়েছে, পানামার-রেজিস্টার্ড এমভি ওয়াকাশিও নামের ওই জাহাজটিমরিশাসের কাছে ডি’সিনির প্রবাল চাদরে উপর দুর্ঘটনার কবলে পড়েছে। যার ফলে প্রচুর পরিমাণে তেল সমুদ্রের জলে মিশে গিয়েছে। ভারতে নির্মিত হালকা হেলিকপ্টার ধ্রুব  মরিশাস উপকূলে ওই ডুবন্ত  জাহাজ থেকে তেল আহরণের জন্য মোতায়েন করা হয়েছে। গুজরাতের গান্ধিনগরের পিআরও ডিফেন্স তার অফিসিয়াল টুইটার হ্যান্ডেলের মাধ্যমে এই তথ্য জানিয়েছেন।

আরও পড়ুন: বাঁধে জলের তোড়ে ভেসে যাচ্ছে যুবক, হেলিকপ্টার নিয়ে উদ্ধার করল বায়ুসেনা, দেখুন সেই রোমহর্ষক ভিডিও

রবিবারই মরিশাসের সরকার ভারতের কাছে সাহায্যের অনুরোধ জানিয়েছিল। দ্বীপরাষ্ট্রের কাছে একটি পণ্যবাহী জাহাজ দুর্ঘটনায় প্রায় ৪০০০ টন তেল ছড়িয়ে পড়ছে সমুদ্রের জলে। মরিশাস সরকারের তরফে অনুরোধ পেয়ে টেকনিক্যাল ইক্যুইপমেন্ট দিয়ে পাশে দাঁড়িয়েছে ভারত। পরিস্থিতি মোকাবিলায় ভারত মহাসাগরের অংশীদার হিসেবে ভারতীয় বায়ুসেনার এয়ারক্র্যাফটে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে এই ৩০ টন প্রয়োজনীয় সরঞ্জাম, এমন ঘোষাণা করেছে ভারতের বিদেশমন্ত্রক। এছাড়াও ইন্ডিয়ান অয়েল লিমিটেড সবরকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছে মরিশাস সরকারকে।

আরও পড়ুন: টিকটক নিষিদ্ধ করেও রাগ কমল না ট্রাম্পের, এবার চিনকে শায়েস্তা করতে কোপানলে আলিবাবা

বিদেশমন্ত্রক বলেছে যে এই বিশেষ সরঞ্জামগুলির মধ্যে রয়েছে ওশান বুম, রিভার বুম, ডিস্ক স্কিমারস, হেলি স্কিমারস, পাওয়ার প্যাকস, ব্লোয়ার্স, স্যালভেজ বার্জেস এবং তেল শোষণকারী গ্রাফিন প্যাড এবং অন্যান্য আইটেম। এগুলি বিশেষত তেল স্লিক, জলযুক্ত স্কিম তেল পরিশোধন এবং উদ্ধারকাজে সহায়তা করার জন্য ব্যবহার করা হয়।

শুধু তাই নয়, ইতিমধ্যেই ই ন্ডিয়ান কোস্ট গার্ডের বিশেষ দক্ষতাসম্পন্ন ১০ সদস্যের একটি টেকনিক্যাল রেসপন্স টিমকে  ঘটনাস্থলে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার কাজে নিয়োগ করা হয়েছে। এই দলের সদস্যতা তেল ছড়িয়ে পড়া প্রতিরোধের ব্যবস্থাগুলি মোকাবিলার জন্য বিশেষভাবে প্রশিক্ষিত।

তেলবাহি ওই ট্যাঙ্কার থেকে তেল আহরণের জন্য ভারতীয় সেনার চেতক কপ্টারের পাশাপাশি দেশি তৈরি হালকা হেলিকপ্টার ধ্রবুকেও কাজে লাগান হয়েছে। এই প্রসঙ্গে দেশের বিদেশমন্ত্রক জানিয়েছে, ভারত মহাসাগর অঞ্চলে প্রতিবেশীদের সাহায্য করতে ভারত সরকার বদ্ধপরিকর। এমনিতেও ভারতের বন্ধু হিসাবেই পরিচিতি রয়েছে মরিশাস সরকারের।

 

 

এদিকে পরিবেশবিদরা বলছেন, জাহাজ থেকে তেল ছড়িয়ে পড়ার কারণে ব্যাপক পরিবেশ দূষণ এবং সাগরের বাস্তুতন্ত্র ধ্বংসের আশঙ্কা রয়েছে। এই বিষয়ে মরিশাসের প্রধানমন্ত্রী প্রবিন্দ যুগনাথ পরিবেশ সংক্রান্ত জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। জলে তেলের বিস্তার কমিয়ে আনতে প্রায় ৪০০ সমুদ্র বুম এবং আরও উন্নত মানের যন্ত্রপাতি ব্যবহার করার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।