সেই সোভিয়েত রাশিয়ার সময় থেকেই ভারতের সঙ্গে পূর্ব ইউরোপের এই দেশের ঘনিষ্ঠ বন্ধন রয়েছে। এবার সেই বন্ধনকে আরও দৃঢ় করতে জলপথেও দুই দেশকে জুড়ে দেওয়ার সম্ভাবনা তৈরি হল।

এদিন ইস্টার্ন ইকোনমিক ফোরামের শীর্ষ বৈঠকে যোগ দিতে দুই দিনের রাশিয়া সফরে ভ্লাদিভস্তক এসে পৌঁছান ভারতের প্রধানমন্ত্রী। প্রথম ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে রাশিয়ার দূর প্রাচ্য এলাকায় পা রাখেন নরেন্দ্র মোদী। তাঁকে স্বাগত জানান রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। এরপরই দুই রাষ্ট্রনেতা একযোগে যান ভেজদা শিপ বিল্ডিং কমপ্লেক্সে। পরে মোদী-পুতিন বৈঠকের শেষে তাঁরা যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনও করেন।

সেখানেই প্রধানমন্ত্রী জানান দুই দেশের মধ্যে বিভিন্ন বিষয়ে মোট ১৫টি চুক্তি সাক্ষরিত হয়েছে। আর তার মধ্যে অন্যতম হল, চেন্নাই ও ভ্লাদিভস্তকের মধ্যে একটি পুরো সময়ের সমুদ্রপথ গড়ে তোলা। এই প্রস্তাবের বিষয়ে দুই দেশের মধ্যে একটি মউ সাক্ষরিত হয়েছে বলেও জানান নরেন্দ্র মোদী।

ইতিমধ্যেই তামিলনাড়ুতে ভারত-রাশিয়া যৌথ উদ্যোগে পরমাণু বিদ্যুত চুল্লি গড়া হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন, এই চু্ল্লির সংখ্যা বাড়তে চলেছে। তাই দুই দেশের মধ্যে এই ক্ষেত্রে সত্য়িকারের বন্ধুত্ব গড়ে উঠছে। আর তার জন্যই জলপথেও দুই দেশকে জুড়ে দেওয়া হচ্ছে। তিনি আরও বলেন ভারত-রাশিয়ার মিত্রতা শুধু তাদের রাজধানী মধ্যেই আবদ্ধ নয়। দুই দেশেই অন্যত্রও মানুষে মানুষে বন্ধন গড়ে উঠুক, ভারত-রাশিয়ার সেটাই লক্ষ্য।