বিশ্বব্যপী করোনাভাইরাস-এর হুমকি যত বাড়ছে, ততই মাথাচাড়া দিচ্ছে এক পুরোনো রোগ, বর্ণবিদ্বেষ। বিশ্বজুড়ে চিনা বা চিনা সন্দেহে মঙ্গোলিয় মুখের মানুষরা এই নতুন ধরণের বর্ণবিদ্বেষের শিকার হচ্ছেন। বাদ যাচ্ছেন না ভারতীয়রাও। ইজরাইলে যেমন এক ভারতীয় বংশোদ্ভূতকে প্রথমে কটুক্তি, তারপর রাস্তায় ফেলে এলোপাথারি মারা হল। অবস্থা সামলাতে এদিন ইজরাইল সরকার এই ঘটনা 'আপত্তিজনক' এবং 'অগ্রহণযোগ্য' বলে সরকারিভাবে সমালোচনা করেছে।

২৮ বছরের আম-শালেম সিংসন স্থানীয় বেনি মেনাশে সম্প্রদায়ের মানুষ। এই বেনি মেনাশে-রা মূলত ভারতের উত্তর-পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য মণিপুর ও মিজোরাম থেকে একসময় ইজরাইলে গিয়ে উপস্থিত হয়েছিলেন। স্বভাবতই তাঁদের মুখেও মঙ্গোলিয় ছাপ রয়েছে। গত সপ্তাহে তাঁকে ইজরাইলের তিবেরিয়াস শহরে বর্ণবিদ্বেষী আক্রমণ করা হয়, সেই সঙ্গে চলে শারীরিক নিগ্রহ। আপাতত বুকে গুরুতর আঘাত নিয়ে তিনি স্থানীয় পোড়িয়া হাসপাতালে ভর্তি আছেন।

ঘটনার সূত্রপাত গত শনিবার। সিংসন পুলিশকে জানিয়েছেন, ওইদিন কাজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে কিছু লোক তাঁকে চিনা বলে সম্বোধন করে। তারপর তাঁকে 'করোনা', 'করোনা' বলে বিদ্রুপ করা হয়। তিনি ওই দুষ্কৃতীদের বোঝাতে যান, তিনি চিনাও নন এবং করোনাভাইরাস সংক্রমণে আক্রান্ত-ও নন। তবে তাতে কোনও লাভ হয়নি। উল্টে তারা শারীরিকভাবে নিগ্রহ করে ওই ভারতীয় বংশোদ্ভূত ইহুদি-কে।  

সিংসন তিবেরিয়াস-এর মাওলোট এলাকার বাসিন্দা। বছর তিনেক আগে তিনি সপরিবারে ভারত থেকে ইসরাইলে পাড়ি জমান। এতদিন তিনি সেখানে নিরুপদ্রবেই ছিলেন। পুলিশ জানিয়েছে ওই ঘটনার কোনও সাক্ষী তারা পায়নি। ওই এলাকার নিরাপত্তা ফুটেজের ভিত্তিতে তারা তদন্ত করছে। বেনি মেনাসে সম্প্রদায়-এর ইসরাইলে বৈধ অভিবাসনের দাবিতে কাজ করা সংগঠন শাভেই ইসরাইল-এর চেয়ারম্যান তথা প্রতিষ্ঠাতা মাইকেল ফ্রেন্ড অবিলম্বে এই ঘটনার তদন্ত করে অপরাধীদের বিচার চেয়েছেন।

বস্তুত ইসরাইলের বুককে এক ইহুদিকে বর্ণবিদ্বেষের শিকার হতে হওয়ায় এই ঘটনা নিয়ে সেই দেশে বেশ সাড়া পড়ে গিয়েছে। বুধবারই ইসরাইল-এর বিদেশ মন্ত্রকের ডেপুটি ম্য়ানেজার গিলাদ কোহেন টুইট করে সিংসন-এর উপর নৃশংস আক্রমণ অত্যন্ত শোচনীয় বলে জানিয়েছেন। হিংসাত্মক এই হামলা একেবারেই গ্রহণযোগ্য নয় বলেও জানিয়েছেন তিনি। 'ভারতীয় বন্ধুদের' উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন এটা ইসরাইলের আসল ছবি নয়। তিনি সিংসন-এর দ্রুত সম্পূর্ণ আরোগ্য-ও কামনা করেছেন।  

তবে ইসরাইলের এই ঘটনা কোনও বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। ইতালি-তে থাকা এক চিনা বংশোদ্ভূত, যিনি কস্মিনকালেও চিনে যাননি, তাঁকে বাস থেকে নামিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল দিন কয়েক আগেই। আবার উত্তরপূর্ব ভারতের রাজ্যগুলির বাাসিন্দাদের ভারতের মধ্যেই বর্ণবিদ্বেষের শিকার হতে হচ্ছে। তাদের দিকে আঙুল তুলে বলা হচ্ছে করোনাভাইরাস। একইরকম বিশ্বব্যপী বর্ণবিদ্বেষের শিকার হতে শুরু করেছেন ইতালিয়রাও।