ভয়াবহ ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল পশ্চিম তুরস্কের সমুদ্র উপকূলবর্তী শহরগুলি। শুক্রবার বিকেলে কম্পন অনুভূত হতেই ঘর ছেড়ে বাইরে বেরিয়ে আসেন স্থানীয় বাসিন্দারা। ভূ-কম্পের ফলে তুরস্কের ইজমির শহরের ২০টি বাড়ি ধ্বংস হয়ে যায়। আতঙ্কে স্থানীয়দের মধ্যে শুরু হয় হুড়োহুড়ি। রিখটার স্কেলে ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৭। পরে স্থানীয় প্রসাসনের তরফ থেকে উদ্ধার কাজ শুরু করা হয়। এখনও পর্যন্ত যা খাবর তাতে এই ভূকম্পের ফলে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে ও আহত হয়েছেন ১২০ জন।

তুরস্কের শুধু ইজমির নয়, পশ্চিম উপকুলের আরও বেশ কয়েকটি জায়গায় কম্পন অনুভূত হয়েছে। বিশেষ করে বোর্নোভা এবং বায়রাকলি শহরে কম্পনের মাত্রা বেশ ভালই ছিল। সেখানেও বেশ কয়েকটি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।স্থানীয় প্রশাসনের তরফ থেকে জানানো হয়েছেস যুদ্ধকালীন তৎপরতায় উদ্ধার কাজ শুরু হয়েছে। তুরস্কের বিপর্যয় মোকাবিলা দফতরের তরফে জানানো হয়েছে নিহত ও আহতের সংখ্যা। প্রয়োজনে ক্ষতিপূরণের কথাও বলা হয়েছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। তুরস্কের পাশাপাশি গ্রীসের কিছু অংশেও কম্পন অনুভূত হয়েছে।

ইউএসজিএসের তরফে জানানো হয়েছে, সোমোসের নোন কার্লোভেশন শহর থেকে উত্তর-পূর্বে ১৪ কিলোমিটার দূরে গ্রীক দ্বীপে ভূকম্পের উৎসস্থল। তুরস্কের রাষ্ট্রপতি রিসেপ তাইয়েপ এরদোগান টুইট করে জানিয়েছেন,'আমরা আমাদের সাধ্যমত ভূমিকম্পে আক্রান্ত নাগরিকদের পাশে দাঁড়িয়েছি। আমরা আমাদের সমস্ত প্রাসঙ্গিক প্রতিষ্ঠান এবং মন্ত্রীদের সাথে নিয়ে এই অঞ্চলে প্রয়োজনীয় কাজ শুরু করার পদক্ষেপ নিয়েছি। আমাদের আশা, আজমির দ্রুত সুস্থ হয়ে উঠবে।'