এক দিনের মধ্যে পাল্টে গেল পুরো চিত্রটা। লন্ডনের মাদাম তুসোর মিউজিয়ামে থাকা রাজপরিবারের জন্য নির্দিষ্ট করা সেট থেকে সরিয়ে দেওয়া হল ডিউক অ্যান্ড ডাচেস অফ সাসেক্স-কে। 

গত বৃহস্পতিবার মোগান এবং হ্যারি তাঁদের ইনস্টাগ্রামে বিবৃতি দিয়ে জানান, রাজপরিবারের অর্থে আর জীবনযাপন করবেন না তাঁরা, বরং রাজকীয় পরিচয় পরিত্যাগ করবেন দু'জনে। প্রিন্স হ্যারি ও মেগানের এই বিবৃতি ঘিরেই এখন হৈচৈ পড়ে গিয়েছে গোটা ব্রিটেন জুড়ে। ঝড় উঠেছে ব্রিটিশ রাজপরিবারের অন্দরেও। আর তার জেরেই লন্ডনের বিখ্যাত মাদাম তুসোর মিউজিয়াম থেকে আলাদা করে দেওয়া হল ডিউক এবং ডাচেস অফ সাসেক্সকে। 

আরও পড়ুন : হবু রাজাদের ছবিতে নেই তিনি, তবে কি মা ডায়নার মত রাজপরিবার ছাড়ছেন হ্যারি

"ডিউক অ্যান্ড ডাচেস অফ সাসেক্স রাজ পরিবার থেকে আলাদা হতে চান এই খবর পেয়ে আমরাও গোটা বিশ্বের মত বিস্মিত", লন্ডনের মাদাম তুসোর তরফে দেওয়া বিবৃতিতে এমনটাই জানিয়েছেন জেনারেল ম্যানেজার স্টিভ ডেভিস। 

 

 

"আজ থেকে মেগান অবং হ্যারির মোমের মূর্তি দুটি রাজপরিবারে সেটে আর দেখা যাবে না। তবে দু'জনই আমাদের কাছে খুব  প্রিয় এবং জনপ্রিয় ব্যক্তিত্ব  হিসাবে লন্ডনের মাদাম তুসোর মিউজিয়ামে উপস্থিত থাকবেন", বিবৃতিতে জানিয়েছেন ডেভিস।

এতদিন হ্যারি ও মেগানের মোমের মূর্তি আগে রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ, প্রিন্স ফিলিপ, প্রিন্স চার্লস ও তাঁর স্ত্রী ক্যামিলা, প্রিন্স উইলিয়াম ও কেট মিডলটনের সঙ্গে ছিল। তবে শুক্রবার থেকে এই জুটির মূর্তি রাজ পরিবারের সেটের থেতে সরিয়ে দেওয়া হল। লন্ডনের পাশাপাশি নিউইয়র্কে মাসাম তুসোর মিউজিয়ামে রাখা রাজপরিবারের সেট থেকে সরানো হয়েছে হ্যারি ও মেগানকে। 

আরও পড়ুন : এনআরসি-র প্রতিবাদে আগেই পথে নেমেছেন, এবার গান বাঁধলেন তৃণমূলনেত্রী

বিট্রিশ রাজপরিবারের থেকে তাঁরা যে অন্যরকম নানা ছোট ছোট ঘটনায় তা বারবার বুঝিয়েছেন হ্যারি ও মেগান। তবে রাজকীয় দায়িত্ব থেকে যে এভাবে তাঁরা সরে আসবেন তা কেউই আঁচ করতে পারেননি। এই বিষয়ে তাঁরা রাজপরিবারের কারও সঙ্গে কোনও আলোচনাও করেননি বলে শোনা যাচ্ছে। আপাতত রাজপরিবারের অন্য কেউ এই বিষয়টি নিয়ে মুখ খোলেননি।