চিনের সোশ্যাল মিডিয়া ছেয়ে গিয়েছে কালো রঙের এক ভয়ানক চেহারায়। সম্প্রতি ইয়াংগৎজি নদীতে দেখা মিলেছে  ৬৫ ফুট লম্বা ওই অদ্ভূত বস্তুটির। ভিডিও সামনে আসতেই চাঞ্চল্য ছড়ায়। ভিউয়ারের সংখ্যা লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়তে থাকে।  শুরু হয়ে যায় গুজব। ভয়ানক চেহারারা বস্তুটিকে'থ্রি জর্জেস ওয়াটার মনস্টার' বা জল দৈত্য বলে ডাকা শুরু হয়।  হুবেই প্রদেশের থ্রি জর্জ বাঁধের কাছে ঢেউয়ের মধ্যে ভাসতে দেখা গিয়েছিল রাক্ষুসে বস্তুটিকে। বেড়ে  চলা দূষণের কারণেই এর সৃষ্টি হয়েছে,  সোশ্যাল মিডিয়ায় এমন মন্তব্য আসতেও শুরু করে। অনেকে আবার দাবি করেন ভয়ানিক বস্তুটি পৌরাণে উল্লিখিত কোনও দৈত্য। আবার এটি  জলের মধ্যে থাকা কোনও বড় সাপ হতে পারে বলেও মন্তব্য করেন অনেকে।

জ্বল্পনা ক্রমেই দানা বাধতে থাকে।  তৎপর হয় প্রশাসন। ময়দানে নামেন বিজ্ঞানীরাও। অনেক কসরতের পর জল থেকে তুলে আনা হয় ওই ভয়ানক চেহারার বস্তুটিকে। তাকে দেখে সবাই তখন একেবাপে থ। জানা যায়, এটি কোনও দৈত্য বা সাপ নয়। বরং ৬৫ ফুটের লম্বা একটি এয়ারব্যাগ। মনে করা হচ্ছে এটিকে শিপইয়ার্ড থেকে ফেলে দেওয়া হয়েছিল।  জল আর হাওয়া ঢুকেই এমন ভয়ানক চেহারা নিয়েছিল সেটি।

দৈত্য বলে যাকে কল্পনা করা হয়েছিল সেটি এয়ারব্যাগ বেরোতেই  নেটিজেনদের উৎসাহ ধাক্কা খায়।  কোথা থেকে ওই এয়ারব্যাগটি জলের মধ্যে এল তা খতিয়ে দেখার কাজ শুরু হয়েছে।