সৌদি আরবের মাটিতে চরম লজ্জায় মুখে পড়ল পাকিস্তান। জানা গিয়েছে পাক সেনা প্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজওয়া-র সঙ্গে বৈঠকের প্রস্তাব ফিরিয়ে দিয়েছেন সৌদি শাহজাদা মহম্মদ বিন সালমান।

বাজওয়া সোমবারই আইএসআই প্রধান-কে সঙ্গে নিয়ে সৌদি আরবে এসেছিলেন। তারপর সৌদি সেনাপ্রধানের সঙ্গে তাঁদের বৈঠক হলেও, সৌদি-পাকিস্তান সম্পর্ক স্বাভাহিক করার জন্য শাহজাদার সঙ্গে বৈঠক করার অনেক প্রচেষ্টা করেন শীর্ষ পাক কর্তারা। কিন্তু, এই বৈঠকের বিষয়ে আগ্রহই দেখাননি শাহজাদা, এমনটাই জানা গিয়েছে। এমবিএস-এর এই পদক্ষেপ থেকেই পরিষ্কার, খুব তাড়াতাড়ি সৌদি আরব, পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে আগ্রহী নয়।  

সৌদির সঙ্গে পাকিস্তানের সম্পর্কের অবনতির পিছনে রয়েছে কাশ্মীরে সমস্যা। চলতি বছরের শুরুতেই পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি কাশ্মীর সমস্যা নিয়ে ইসলামিক দেশগুলির সংগঠন ওআইসি-র বিদেশমন্ত্রীদের একটি বৈঠকের আয়োজন করার বিষয়ে পাকিস্তান-কে সমর্থন না করার জন্য, প্রকাশ্যেই সৌদি আরবের নিন্দা করেছিলেন। সম্প্রতি আরও একধাপ এগিয়ে তিনি বলেছিলেন, ওআইসি যদি এই বিষয়ে পদক্ষেপ না করে, ইমরান খানই ইসলামি দেশগুলির বিদেশমন্ত্রীদের নিয়ে ওই সভা আহ্বান করতে বাধ্য হবে।

এরসঙ্গে পাক্সিতান ও তুরস্কের মধ্যে ক্রমবর্ধমান বন্ধুত্বও সৌদি আরবের পাকিস্তানের থেকে মুখ ঘুরিয়ে নেওয়ার বড় কারণ। কুরেশির ওই বক্তব্যের পরই সৌদি আরবকে একটি বিবৃতি জারি করে জানিয়ে দিয়েছিল পাকিস্তানকে আর ঋণ বা তেল দেবে না। ইসলামাবাদকে তারা ১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ফেরত দিতে নির্দেশ দেয়। এরপরই ক্ষমা চাইতেই বাজওয়া সৌদি সফরে গিয়েছিলেন বলে মনে করেছিল কূটনৈতিক মহল। কিন্তু, শাহজাদার সঙ্গে দেখা করারই সুযোগ পেলেন না তিনি। খালি হাতেই ফিরতে হবে সৌদি থেকে।