মোটরওয়ে দিয়ে একটি রেফ্রিজারেটেড ট্রাক (যে ট্রাকগুলিতে ফ্রিজের মতো শীততাপ নিয়ন্ত্রণ করা যায়) যাচ্ছিল। সাধারণত কাঁচা মাংস বা সবজি নিয়ে যাওয়া হয় এই ট্রাকগুলিতে। হাইওয়েতে নিয়মিত তদন্তের জন্য ট্রাকটি থামিয়ে অনুসন্ধান করতে যেতেই ট্রাকটির মধ্য থেকে পাওয়া গেল ৪১ জন অভিবাসীকে। উত্তর গ্রিসের জাঁথি শহরের ঘটনা।

সোমবারের এই ঘটনা নিয়ে রীতিমতো হইচই পড়ে গিয়েছে ইউরোপিয় দেশটিতে। এই অভিবাসীদের বেশিরভাগই আফগান বলে মনে করা হচ্ছে। গ্রিক পুলিশ জানিয়েছে ৪১ জনই জীবিত এবং প্রত্যেকেই মোটামুটি সুস্থ। তবে সাতজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে হয়েছে। ট্রাকটির রেফ্রিজারেশন ব্যবস্থা বন্ধ ছিল। ট্রাকের চালককে গ্রেফতার করা হয়েছে। অভিবাসীদের সনাক্তকরণের কাজ চলছে। এক পুলিশ কর্তা জানিয়েছেন, অভিবাসীদের মধ্যে কোনও মহিলা নেই, সবাই পুরুষ ও কয়েকজন বাচ্চা ছেলে রয়েছে। কোন কোন দেশ থেকে এই অভিবাসীরা এসেছেন তা জানতে অন্তত দিন দুই লাগবে।

জাঁথি এবং কোমোটিনি শহরের মাঝামাঝি এগনেটিয়া মোটরওয়েতে ট্রাকটিকে থামানো হয়েছিল। ট্রাকটির চালক জর্জিয়ার নাগরিক বলে জানা গিয়েছে। এই ঘটনায় আরও একজন তুরস্কের নাগরিকও জড়িত বলে সন্দেহ করছে গ্রিক পুলিশ। তার সন্ধান চলছে।

গত মাসেই ব্রিটেনের এসেক্সে এরকমই একটি রেফ্রিজারেটেড ট্রাকে ৩৯ জন অভিবাসীর মৃতদেহ পাওয়া গিয়েছিল। তারা সকলেই ছিলেন ভিয়েতনামের নাগরিক। ২০১৬-তে ইউরোপিয়ান ইউনিয়ন এবং তুরস্কের মধ্যে অভিবাসীদের আর জায়গা না দেওয়া নিয়ে একটি বিতর্কিত চুক্তি হয়েছিল। তারপর থেকেই গ্রিসে শরণার্থীদের সবচেয়ে বেশি ভিড় দেখা যায়। বর্তমানে গ্রিসের বিভিন্ন দ্বীপের শরনার্থী শিবিরগুলিতে ৩৪,০০০-এরও বেশি লোক রয়েছে।