একদিকে ভারতের সঙ্গে চিনের সীমান্ত উত্তেজনা। তারমধ্যে ওয়াশিংটনের সঙ্গে বেজিংয়ের বাকযুদ্ধ। এরমাঝেই রাশিয়ায় হঠাৎ করেই শুরু হয়ে গেল সামরিক মহড়া। জানা যাচ্ছে সেনাবাহিনীকে এই সামরিক মহড়ার নির্দেশ দিয়েছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। 

 

 

কোনো ধরনের পূর্ব প্রস্তুতি ছাড়াই রাশিয়ার তিন বাহিনী আকস্মিক ভাবে সামরিক মহড়ায় অংশ নিয়েছে। দেশটির দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চলে শুক্রবারই এই মহড়া চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়। রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তার সামরিক মহড়া চালানোর জন্য সশস্ত্র বাহিনীকে নির্দেশ দেওয়ার পর পরই এই মহড়া শুরু হয়েছে।

আরও পড়ুন: ইমিউনিটি বাড়াতে নিয়মিত যোগাভ্যাস, মোদীর দেখান পথেই হাঁটছে ছোট্ট পেঙ্গুইন ছানা, দেখুন ভিডিও

নিজ দেশের সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের যুদ্ধ করার সক্ষমতা যাচাই করে দেখার জন্য পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই হঠাৎ করে এই মহড়া চালানোর নির্দেশ দেন পুতিন।
রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রক এক বিবৃতিতে জানিয়েছে , প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশে তাৎক্ষণিকভাবে সামরিক মহড়া শুরু হয়েছে। এতে নৌবাহিনী, বিমানবাহিনী ও স্থলবাহিনীর সদস্যরা অংশগ্রহণ করেছেন। 

আরও পড়ুন: প্রাণী থেকেই ছড়াচ্ছে মারণ করোনা, আতঙ্কে হত্যা করা হচ্ছে লক্ষাধিক মিঙ্ককে

রাশিয়ার প্রশান্ত মহাসাগরীয় নৌবহরের পাশাপাশি উত্তরাঞ্চলীয় নৌবহর এই সামরিক মহড়ায় অংশ নিচ্ছে বলে বিবৃতি দিয়ে জানান প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু । রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিবৃতি বলা হয়েছে, রাশিয়ার দক্ষিণ-পশ্চিমে সুরক্ষা নিশ্চিত করতে পুতিন দেড় লাখ সেনা সদস্য এবং কয়েকশ বিমান ও নৌযান নিয়ে মহড়া চালাতে বলেছেন। এর আগে রাশিয়ার প্রাক্তন প্রেসিডেন্ট ও জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদের উপ-সচিব দিমিত্রি মেদভেদেভ বলেছিলেন, করোনাভাইরাসের প্রকোপের মধ্যেই মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো জোট সামরিক মহড়া চালিয়েছে এবং রাশিয়া নিশ্চিতভাবে এর উপযুক্ত জবাব দেবে।