বর্তমানে বিশ্বে যে কটি দেশে বিদেশীদের ভ্রমণের সবচেয়ে কম সুযোগ রয়েছে, তারমধ্যে অন্যতম সৌদি আরব। তবে সাম্প্রতিক ঘোষণায় জানা গিয়েছে এই অবস্থাটা পাল্টাতে চলেছে। বাইরের দেশের পর্যটকদের জন্য অবশেষে খুলছে চলেছে সৌদি আরবের দরজা। তবে একই সঙ্গে চাপিয়ে দেওয়া হয়েছে বেশ কিছু বিধি নিষেধের শর্ত।

এতদিন অবধি সৌদি আরবে যাওয়ার ভিসা পেতেন হজ-যাত্রীরা, আর হাতে গোনা কিছু ব্যবসায়ী। কোনও পর্যটন ভিসার ব্যবস্থা ছিল না। কিন্তু সৌদি শাহজাদা মহম্মদ বিন সালমান সেই দেশে সামাজিক পরিবর্তনের ডাক দিয়েছেন। আধুনিক বিশ্বের সঙ্গে খাপ খাওয়ানোর চেষ্টা করছেন। আর তার অংশ হিসেবেই 'সৌদি ওপেন হার্টস, ওপেন ডোরস' নামে এক অনুষ্ঠান করে, ৪৭টি দেশের নাগরিকদের জন্য সৌদি আরব পর্যটন ভিসা দেওয়ার কথা জানালো।

তবে হৃদয় ও দরজা দুটিই খোলা হবে কিছু শর্তসাপেক্ষে। সৌদি রাস্তাঘাটে পর্যটকরা কীভাবে শালিনতা বজায় রাখবেন তার জন্য একটি বিধি-নিষেধের তালিকা দেওয়া হয়েছে। নিষেধের তালিকায় পড়েছে, প্রকাশ্যে চুম্বন, স্বল্ববাস পরা, মদ খাওয়া, রাস্তায় প্রস্রাব করা, থুতু ফেলা, লাইনে দাঁড়িয়ে ধাক্কাধাক্কি করা, বিনা অনুমতিতে কারোর ছবি বা ভিডিও তোলা, আজানের সময় গান-বাজনা চালানো।

সৌদির নয়া ভিসা ওয়েবসাইটের তথ্য অনুযায়ী এই বিধি লঙ্ঘন করলে ৫০ রিয়াল বা ভারতীয় মুদ্রায় ৯৪০ টাকা থেকে ৬০০০ রিয়াল বা ভারতীয় মুদ্রায় ১,১২,৭৭০ টাকা মতো জরিমানা করা হবে। সৌদির পুলিশই কেয়াল রাখবে, পর্যটকরা এই বিধি মেনে চলছেন কিনা। তাদের হাতেই থাকবে জরিমানা করার অধিকারও।