রাবণই নাকি বিশ্বের প্রথম পাইলট- অন্তত সেই রকমটাই বিশ্বাস রয়েছে বিশ্বাস শ্রীলঙ্কা সরকারের। আজ থেকে আনুমানিক ৫০০০ বছর আগে পুষ্পক রথে চড়ে যাওয়ার ঘটনা থেকেই এমন বিশ্বাস সেদেশের সরকারের। আর এবার শ্রীলঙ্গার সিভিল অ্যাভিয়েশন অথরিটির তরফে নেওয়া হয়েছে এক বিশেষ উদ্যোগ। ৫০০০ বছর আগে আকাশপথে পাড়ি দেওয়ার জন্য রাবণের অনুসৃত পথ নিয়েই পরীক্ষা নিরীক্ষা করা হবে বলে জানা গিয়েছে। 

একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাতকারে কলম্বোর সিভিল অ্যাভিয়েশন অথরিটির ভাইস চেয়ারম্যান শশী দানাতুঙ্গে জানিয়েছেন, কর্তৃপক্ষের কাছে এই বিষয়ে অকাট্য তথ্যপ্রমাণ রয়েছে, যার ভিত্তিতে বলা যায় যে, পাইলট হিসাবে রাবণই প্রথম যিনি আকাশপথে এয়ার ক্র্যাফ্ট উড়িয়েছিলেন। তিনি আরও বলেন যে, রাবণ হলেন  বিশেষ ক্ষমতা সম্পন্ন এক ব্যক্তি যিনি প্রথম আকাশপথে পাড়ি দিয়েছিলেন এবং এটি কোনও পৌরাণিক বিষয় নয়, এটাই সত্যি। এই বিষয়ে বিস্তারিত গবেষণার প্রয়োজন রয়েছে বলে তিনি মনে করেন। তিনি আরও বলেন আগামী পাঁচ বছরের মধ্য়েই তাঁরা এটা প্রমাণ করে দেবেন। 

এদিন শ্রীলঙ্কার কাতুনায়াকে সিভিল অ্যাভিয়েশন এক্সপার্ট, ঐতিহাসিক, প্রত্নতাত্ত্বিক, বিজ্ঞানী ও ভূতাত্ত্বিকদের একটি সম্মিলিত বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। প্রসঙ্গত এই কাতুনায়াকেই শ্রীলঙ্কার সবচেয়ে বড় আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরটি অবস্থিত। সেই বৈঠকেই আলোচনার মাধ্যমে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় যে আজ থেকে ৫০০০ বছর আগে রাবণই প্রথম আকাশপথে যাত্রা করেছেন। তবে  অনেকে অবশ্য শ্রীরাম চন্দ্রের স্ত্রী সীতাকে অপহরণের বিষয়টি প্রত্যাখ্যান করেন। তাঁদের দাবি এচা ভারতীয় সংস্করণের। তাঁদের কাছে রাবণ একজন মহান রাজা।