করোনাভাইরাস সংক্রমণের কোনও নির্দিষ্ট চিকিৎসা পদ্ধতি বা প্রতিষেধক এখনও আবিষ্কার হয়নি। এই অবস্থায় আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য চিকিত্সকরা বিভিন্ন প্রকারের অ্যান্টিবায়োটিকস ব্যবহার করছেন। আর এই অতিরিক্ত অ্যান্টিবায়োটিকস-এর ব্যবহারের ফলে অযাচিতভাবে ফের একবার মাথাচাড়া দিতে চলেছে এসটিডি বা সেক্সুয়ালি ট্রান্সমিটেড ডিজ়িজ বা যৌনরোগ। সতর্ক করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা WHO.

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য সান-এর প্রতিবেদন অনুযায়ী বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে বুকের সংক্রমণ বা সাইনাস সংক্রমণের চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত অ্যাজিথ্রোমাইসিন ধরণের অ্যান্টিবায়োটিকস-এর ব্যবহার কোভিড মহামারির সময়ে দারুণভাবে বেড়েছে। অধিকাংশ মানুষই কোভিড-১৯-এ স্বাস্ত্যের হাল খুব খারাপ না হলে হাসপাতালে যাচ্ছেন না। পরিবর্তে তারা নিজেরাই ওষুধ খাচ্ছেন। আর এর ফলে গনোরিয়া, বা সুপার গনোরিয়ার মতো মারাত্মক যৌনরোগ সংক্রমণের সম্ভাবনা আরও বেড়ে যাচ্ছে।

'সুপার গনোরিয়া'র বিরুদ্ধে এমনিতেই বেশিরভাগ অ্যান্টিবায়োটিকস কাজ করে না। তার উপর বর্তমানে কোভিড প্রতিরোধে অ্যান্টিবায়োটিকের অতিরিক্ত ব্যবহারে, বর্তমানে যে অ্যান্টিবায়োটিকগুলি গনোরিয়ার চিকিৎসার জন্য সুপারিশ করা হয়, সেগুলিও কার্যক্ষমতা হারাতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। বর্তমানে সুপারিশ করা অ্যান্টিবায়োটিকগুলির বিরুদ্ধে 'সুপার গনোরিয়া'র প্রহতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে যাবে। ফলে অ্যান্টিবায়োটিক-প্রতিরোধী সুপারগনোরিয়া সংক্রমণের সংখ্যা আরও বাড়বে।