সুপ্রিমকোর্টের রায় দেওয়া সত্ত্বেও আমাদের দেশে সমপ্রেম বা সমকামী সম্পর্ক নিয়ে ছুঁৎমার্গ যে কিছু কম নয়, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। কিন্তু সমকামী সম্পর্কে শুধু স্বীকৃতি দেওয়াই নয়, তাঁদের সম্পর্ককে পরিণতি দিয়ে ইতিহাস গড়ল তাইওয়ান। বলা চলে এশিয়ায় প্রথম আইনি স্বীকৃতি পেয়ে এক সমপ্রেমী যুগল বাঁধা পড়ল বিবাহ বন্ধনে। 

আজ সংবাদমাধ্যমের সামনেই আইনিভাবে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হলেন তাইওয়ানের এই দুই নাগরিক। একে অপরের হাতে হাত রেখে, স্নেহের চুম্বন ভাগ করে নেন যুগলে। নবদম্পতি হুয়াং মেই ইউ এবং ইউ ইয়া তিং আইনিভাবে সরকারি কাগজে সাক্ষর করে নিয়মমাফিক সংগ্রহ করেন নতুন আইকার্ডও। তবে এই শুভ পরিনয় কিন্তু খুব সহজে সুসম্পন্ন হয়নি। প্রায় দীর্ঘ ত্রিশ বছরের লড়াইয়ের পরেই মিলেছে সমপ্রেমে বিবাহের আইনি স্বীকৃতি। 

এ যেন এক নতুন যুগের সূচনা হল বলে মনে করছেন অনেকে।  সংবাদসংস্থাকে দেওয়া সাক্ষাত্‍কারে তাঁরা জানিয়েছেন, অনেক দেরিতে হলেও বিবাহের স্বীকৃতি পেয়ে তাঁরা অত্যন্ত খুশি। তবে এই নতুন যুগের সূচনা হওয়ার পরই বহু সমপ্রেমীই যুগলই বিবাহের জন্য রেজিস্ট্রি করতে এগিয়ে এসেছেন বলে জানা গিয়েছে। শেন লিন এবং মার্ক ইউয়ান নামে আর এক যুগল রেজিস্ট্রি করার পর খুবই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন। তাঁরা জানান, নিজের দেশের জন্য খুবই গর্ববোধ করছেন।