মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ও চেন্নাই সুপার কিংস - আইপিএল-এর ইতিহাসের সবচেয়ে সফল দুই দল। দুই দলই তিনবার করে আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এই বার কে কাকে ছাপিয়ে যায় তার পরীক্ষা। 'আইপিএল-এর এল ক্লাসিকো', 'ব্য়াটল ফর সুপ্রিমেসি', 'ওয়ার অব দ্য জায়ান্টস' - রবিবারের ফাইনালকে নানা বিশেষণে ভূষিত করা হচ্ছে। তবে সাম্প্রতিক ফর্ম যদি ধরতে হয়, তবে রোহিত শর্মার মুম্বই ইন্ডিয়ান্সই এগিয়ে আছে তা বলতেই হবে। চলতি মরসুমে কোয়ালিফায়ার-সহ তিন-তিনবার সিএসকে হারিয়েছে তারা।

এই মরসুমের ফলাফল

চলতি আইপিএল মরসুমে চেন্নাই সুপার কিংসের সাফল্যের পিছনে অন্যতম ফ্যাক্টর তাহির-হরভজন-জাদেজা স্পিন ত্রয়ীর সাফল্য। আইপিএল-এর প্রতিটি দলের ব্যাটসম্যানরাই তাঁদের খেলতে অসুবিধায় পড়েছেন। কিন্তু একমাত্র মুম্বই ইন্ডিয়ান্সই তাদের সফল ভাবে রুখে দিয়েছে। লিগ পর্বের প্রথম ম্যাচে প্রথমে ব্য়াট করে ১৭০ রান তুলেছিল মুম্বই। তারপর সিএসকে ব্য়াটসম্য়ানদের ১৩৩/৮ স্কোরেই বেঁধে রাখে। ফিরতি ম্যাচে আবার মালিঙ্গা ও ক্রুণাল পাণ্ডিয়ায় দাপটে ১৫৬ রান তাড়া করতে গিয়ে ১০৯ রানেই গুটিয়ে গিয়েছিল চেন্নাই। আর প্রথম কোয়ালিফায়ারে চেন্নাই সুপার কিংস আগে ব্যাট করে মাত্র ১৩২ রান তুলতে পেরেছিল। সূর্যকুমার যাদবের অপরাজিত ৭১ রানের ইনিংসের জোরে জয় পায় এমআই।

মুম্বই ইন্ডিয়ান্স দলের খবর

এই মরসুমে ব্য়াট হাতে রান পেলেও ধারাবাহিকতা নেই অধিনায়ক রোহিত শর্মার ব্যাটে। তবে তিনি বড় ম্যাচের খেলোয়াড়। তাই ফাইনালে তাঁর কাছ থেকে দুর্দান্ত একটা সূচনা আশা করা হচ্ছে। দলের বোলিং বিভাগে ছন্দে আছেন বুমরা। মাঝের ওভারে বল হাতে ভালো করছেন ক্রুণাল পাণ্ডিয়া ও রাহুল চাহারও। তবে দলের এক্স ফ্যাক্টর অবশ্যই আরেক পাণ্ডিয়া, হার্দিক। হায়দরাবাদের পিচে ডেথ ওভারে তাঁর ব্যাটিং তাণ্ডব অনেকটা ফারাক গড়ে দিতে পারে। প্রথম একাদশে জয়ন্ত যাদবের বদলে আসতে পারেন ম্যাকক্লেনাঘান। এই একটি মাত্র পরিবর্তন ছাড়া আগের ম্য়াচের প্রথম একাদশই ধরে রাখা হবে। ম্যাকক্লেনাঘানের খেলার বিষয়টি পিচ দেখে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

চেন্নাই সুপার কিংস দলের খবর

গত মরসুমের মতো এই মরসুমেও ধারাবাহিকতা খুঁজে পাচ্ছিলেন না সিএসকের দুই ওপেনার ওয়াটসন ও দু প্লেসিস। কিন্তু, দিল্লি ক্যাপিটাল্স ম্যাচে ফর্ম ফিরে পেয়ে দুজনেই নিশ্চিন্ত করেছেন অধিনায়ক ধোনিকে। দুজনেরই কিন্তু একার হাতে খেলা ঘোরানোর ক্ষমতা রয়েছে। তারা ভালো শুরু করলে ইনিংস এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার দায়িত্ব নেবেন ধোনি ও রায়ডু। একমাত্র চিন্তা রয়েছে চিন্না থালা রায়নার ফর্ম নিয়ে। এছাড়া আগের ম্যাচে শর্দুল ঠাকুরকে দিয়ে মাত্র ১ ওভারই বল করাতে পেরেছিলেন ধোনি। যদি হায়দরাবাদে সিএসকে ৬ বোলারে খেলে তবেই শর্দুল প্রথম একাদশে থাকবেন। নাহলে তাঁর বদলে খেলবেন মুরলি বিজয়।

দুই দলের সম্ভাব্য প্রথম একাদশ -

মুম্বই ইন্ডিয়ান্স: রোহিত শর্মা (অধিনায়ক), কুইন্টন ডি কক, সূর্যকুমার যাদব, ইশান কিশান, কিয়েরন পোলার্ড, হার্দিক পাণ্ডিয়া, ক্রুনাল পাণ্ডিয়া, জয়ন্ত যাদব / মিচেল ম্যাকক্লেনাঘান, রাহুল চাহার, লাসিথ মালিঙ্গা ও যশপ্রীত বুমরা।
চেন্নাই সুপার কিংস: শেন ওয়াটসন, ফাফ দু প্লেসিস, সুরেশ রায়না, আম্বাতি রায়ডু, মহেন্দ্র সিং ধোনি (অধিনায়ক), মুরলি বিজয় / শর্দুল ঠাকুর, রবীন্দ্র জাদেজা, ডোয়েন ব্রাভো, দীপক চাহার, হরভজন সিং ও ইমরান তাহির।