এবারেও হল না। নাম-ব্র্যান্ড, জার্সি, সাপোর্ট স্টাফ - অনেক বদল এনে আইপিএল ভাগ্যেও প্রায় বলটা এনে ফেলেছিল দিল্লি ক্যাপিটাল্স। কিন্তু কাছাকাছি এসেও অধরাই থেকে গেল তাদের প্রথম আইপিএল ফাইনাল খেলার স্বপ্ন। তিনবারের আইপিএল চ্যাম্পিয়ন চেন্নাই সুপার কিংস-এর বিরুদ্ধে আইপিএল ২০১৯-এর দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে ৬ উইকেটে পরাজিত হল রাজধানির দল। আর এই ম্যাচ জয়ের ফলে অষ্টমবারের জন্য আইপিএল ফাইনালে পৌঁছে গেল মহেন্দ্র সিং ধোনির দল। সেখানে তাদের মোকাবিলা করতে আরেক তিনবারের আইপিএল চ্যাম্পিয়ন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের।

এদিন প্রথমে ব্যাট করতে নেমে প্রথম থেকেই পিছিয়ে পড়েছিল দিল্লি ক্যাপিটাল্স। সিএসকে প্রত্যেক বোলারই বেশ নিয়ন্ত্রিত বল করেন। ঋষভ পন্থ (২৫ বলে ৩৮) কিছুটা চেষ্টা করলেও তা যথেষ্ট ছিল না। ২০ ওভারে মাত্র ১৪৭/৯-এই দিল্লির ইনিংস বেঁধে রাখেন ডোয়েন ব্রাভো-রা।

এই ধরণের হাই প্রোফাইল ম্যাচে অনেক সময় কম রানের লক্ষ্য বুমেরাং হয়ে যায়। কিন্তু চেন্নাই-এর অভিজ্ঞ ব্যাটম্যানরা দিল্লি ক্যাপিটাল্স-কে ম্যাচে ফেরার কোনও সুযোগই দেননি। দু'প্লেসিস (৩৯ বলে ৫০) ও শেন ওয়াটসন (৩২ বলে ৫০) প্রথম উইকেট জুটিতেই ১০ ওভারে ৮১ রান তুলে দিয়েছিলেন। ম্য়াচের ভবিষ্যত ওখানেই লেখা হয়ে গিয়েছিল। রায়ডু-ধোনিরা ম্যাচে আর কোনও বাঁক আসতে দেননি।

এই জয়ের ফলে এই নিয়ে চতুর্থবার আইপিএল ফাইনালে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের মুখোমুখি হবে চেন্নাই সুপার কিংস। দুই দলই তিনবার করে কাপ জিতেছে। ২০১০ সালে জিতেছিল সিএসকে। সেটাই ছিল তাদের প্রথম ট্রফি জয়। কিন্তু ২০১৩ ও ২০১৫ সালে জেতে মুম্বই ইন্ডিয়াান্স। চলতি আইপিএল-এও দুটি লিগ ম্যাচ ও প্রথম কোয়ালিফায়ার - তিন ম্যাচেই জিতেছে মুম্বই। এইবার ফাইনালে রোহিত না ধোনি শেষ হাসি কে হাসেন, সেটাই দেখার।