ব্যর্থ ওপেনারেরা-
প্রথমে ব্যাট করতে নেমে চেন্নাই ওপেনারদের মধ্যে দ্রুত ফিরে যান ফ্যাফ দু প্লেসিস। অপর ওপেনার স্যাম কারান ক্রিজে বেশ কিছু সময় কাটিয়েও প্রভাব ফেলতে ব্যর্থ। 

স্লো ব্যাটিং-
গতকালের ম্যাচে চেন্নাই টপ অর্ডারে শেন ওয়াটসন বাদে বাকি প্রত্যেকে খুবই ধীর গতিতে ব্যাটিং করেন। কারান, দু প্লেসিস এবং রায়ডু মিলে ৫৩ বলে মাত্র ৪৫ রান তোলেন। ঝোড়ো শুরু করেও কার্তিক ত্যাগীর শিকার হয়ে অত্যন্ত দ্রুত ফেরেন ওয়াটসন। 

ধোনির রান আউট-
স্লো ব্যাটিং করেও রাজস্থানের মিসফিল্ডিংয়ের দৌলতে রান করে যাচ্ছিলেন ধোনি। কিন্তু কার্তিক ত্যাগীর ওভারে নিজের দোষে জোফ্রা আর্চার ও সঞ্জু স্যামসনের দুরন্ত যুগলবন্দীতে ফেরেন রানআউট হয়ে। 

লড়লেন জাদেজা-
কাল চেন্নাই ব্যাটসম্যানদের মধ্যে একমাত্র লড়াই করলেন জাদেজা। চারটি চারের সাহায্যে বাকি সতীর্থদের ব্যর্থতার মধ্যেও ৩০ বলে ৩৫ রান করলেন তিনি। তার জন্যই সিএসকের স্কোর ১২০ পেরোয়। 

কৃপন স্পিনার-
কালকে দুর্দান্ত বোলিং করেছেন রাজস্থানের স্পিনার দ্বয়। রাহুল তেওটিয়া ও শ্রেয়স গোপাল মিলে তাদের ৮ ওভারে দিয়েছেন মাত্র ৩২ রান। দুজনেই পান একটি করে উইকেট। তাদের সাথে সাথে দুর্দান্ত বোলিং আর্চারের। 

ঝোড়ো স্টোকস-
রাজস্থানের হয়ে দুর্দান্ত শুরু করেন বেন স্টোকস। মারমূখী ব্যাটিং করতে থাকেন তিনি। কিন্তু ১১ বলে ১৯ রান করার পর দীপক চাহারের শিকারে পরিণত হন তিনি। 

পাল্টা ধাক্কা চেন্নাই পেসারদের-
রাজস্থানের ইনিংসের শুরুতেই তাদের জোরালো ধাক্কা দেন চেন্নাই পেসাররা। চাহার ও হ্যাজলউডের দুর্দান্ত বোলিংয়ের সামনে মাত্র ২৮ রানে তিন উইকেট হারিয়ে ফেলে রাজস্থান। কিন্তু তারপর বাকি বোলাররা তেমন প্রভাব ফেলতে পারেননি। 

সতর্ক স্মিথ-
দ্রুত উইকেট পড়তে থাকায় এবং খুব বেশি রান টার্গেট না হওয়ায় ক্রিজে এসে আল্ট্রা ডিফেন্সিভ মোডে চলে যান স্টিভ স্মিথ। শেষ অবধি ক্রিজে থেকে বাটলারকে খোলা মনে খেলার সুযোগ করে দিয়ে এবং দলের জয় নিশ্চিত করে আসেন রাজস্থান অধিনায়ক। 

বিধ্বংসী বাটলার-
যখন ক্রিজে এসেছিলেন তখন রাজস্থান রীতিমতো ধুঁকছে। ক্রিজে এসে সামান্য সময় নেন কিন্ত তারপর নিজের স্বাভাবিক খেলা শুরু করেন। ৭ টি চার ও ২ টি ছক্কা সহযোগে ৪৮ বলে ৭০ রান করে রাজস্থানকে জয় এনে দেন বাটলার। 

কার্যত শেষ চেন্নাইয়ের সফর-
আইপিএলের প্লে অফের যোগ্যতা অর্জন করতে গেলে ৮ টি ম্যাচ জেতা প্রয়োজন। কিন্তু এই হারের পরে তাদের বাকি সমস্ত ম্যাচ জিতলেও আটটি ম্যাচ জেতা সম্ভব নয়। তাই এবছরের মতো কার্যত অভিযান শেষ চেন্নাইয়ের।