প্রথমে আরসিবি, তারপর মুম্বই ইন্ডিয়ান্স, এবার দিল্লি ক্যাপিটাস। পরপর গ্রুপ টেবিলের প্রথম তিন দলকে হারিয়ে অবিশ্বাস্যভাবে আইপিএলের লড়াইতে ফিরে এল কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। মঙ্গলবার আইপিএলের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে দিল্লি ক্যাপিটালসকে ৫ উইকেটে হারাল কেএল রাহুলের দল। প্রথমে ব্যাট করে ২০ ওভারে শিখর ধওয়ানের সেঞ্চুরির সৌজন্যে ১৬৫ রানের টার্গেট দেয় দিল্লি। জবাবে নিকোলাস পুরান ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের পার্টনারশিপের সৌজন্য ৬ বল বাকি থাকতেই ম্য়াচ জিতে নেয় পঞ্জাব। টসে জিতে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন দিল্লি ক্যাপিটালসের অধিনায়ক শ্রেয়স আইয়র। কিন্তু চতুর্থ ওভারে দলের ২৫ রানের মাথায় আউট হয়ে যান পৃথ্বী শ। জিমি নিশামের বলে ৭ করে আউট হন তিনি। অপরদিকে নিজের ভাল ফর্মের থাকার প্রদর্শন করতে থাকেন শিখর। একের পর এক আক্রমণাত্বক শট খেলেন তিনি। পাওয়ার প্লের ৬ ওভার শেষে দিল্লি ক্যাপিটালসের স্কোর দাঁড়ায়  ৫৩ রানে ১ উইকেট। পাওয়ার প্লে-র পরও নিজেদের পার্টনারশিপ এগিয়ে নিয়ে যান শ্রেয়স আইয়র ও শিখর ধওয়ান। কিন্তু নবম ওভারে ৭৩ রানে দ্বিতীয় উইকেট পড়ে দিল্লির। মুরগান অশ্বিনের বলে ১৪ রান করে আউট হন শ্রেয়স আইয়র। এরপর দিল্লির ইনিংস এগিয়ে নিয়ে যান পন্থ ও ধওয়ান। কিন্তু ১৪ তম ওভারে ম্যাক্সওয়েলের বলে আউট হন পন্থ। তিনি করেন ১৪ রান। এরপর ক্রিজে আসেন মার্কাস স্টয়নিস। ১৫ ওভার শেষে দিল্লি ক্যাপিটালসের স্কোর দাঁড়ায় ১১৭ রানে ৩ উইকেট।

১৫ ওভারের পর রানের গতিবেগ বাড়ান দিল্লির ব্যাটসম্যানরা। ১৬ব তম ওভারে আসে ৯ রান। নিজের আক্রমণাত্বক ইনিংস চালিয়ে যান শিখর ধওয়ান। ১৯ ওভার শেষে দিল্লির স্কোর দাঁড়ায় ১৩৯ রানে ৩ উইকেট। ১৮ তম ওভারে দ্রুত রান তুলতে গিয়ে আউট হন স্টয়নিস। মহম্মদ শামির বলে আউট হন তিনি। করেন ৯ রান। ১৮ ওভার শেষে দিল্লির স্কোর দাঁড়ায় ১৪৫ রানে ৪ উইকেট। ১৯ তম ওভারে নিজের শতরান পূরণ করেন শিখর ধওয়ান। ৫৭ বলে নিজের সেঞ্চরি পূরণ করেন ধওয়ান। ১৯ তম ওভারে দিল্লির স্কোর দাঁড়ায় ১৫৭ রানে ৪ উইকেট। শেষ ওভারে শামির বলে ১০ রান করে আউট হন হেটমায়ার। ২০ ওভার শেষে দিল্লির  স্কোর দাঁড়ায় ১৬৪ রানে ৫ উইকেট। ১০৬ রানে অপরাজিত থাকেন শিখর ধওয়ান। কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের টার্গেট ১৬৫ রান। 

রান তাড়া করতে নেমে শুরুতেই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় কিংস ইলেভেন পঞ্জাব। তৃতীয় ওভারেই অ্যাক্সর প্যাটেলের বলে আউট হন কেএল রাহুল। পঞ্জাব অধিনায়ক করেন ১৫ রান। এরপর মায়াঙ্ক আগরওয়ালের সঙ্গে ইনিংস এগিয়ে নিয়ে যান ক্রিস গেইল। এসেই দ্রুত গতিতে রান তোলা শুরু করেন ইউনিভার্সাল বস। কিন্তু ষষ্ঠ ওভারে ১৩ বলে ২৯ রান করে আউট হয়ে যান ক্রিস গেইল । তার উইকেট নেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন।  একই এভারে রান আউট হয়ে প্যাভেলিয়নে ফেরত যান মায়াঙ্ক আগরওয়াল। ৫ রান করেন তিনি। পাওয়ার প্লের ৬ ওভার শেষে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের স্কোর দাঁড়ায় ৫৬ রানে ৩ উইকেট। এরপর পঞ্জাবের ইনিংসের রাশ ধরেন নিকোলাস পুরান ও গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। ধীরে ধীরে তারা এগিয়ে নিয়ে যায় পার্টনারশিপ।

ঠান্ডা মাথায় নিজেদের মধ্যে অর্ধশতরানের পার্টনারশিপ পূরন করেন পুরান ও ম্যাক্সওয়েল জুটি।  ম্যাক্সওয়েল একটু ধরে খেললেও, অপরদিকে থেকে আক্রমণাত্বক ইনিংস খেলেন পুরান। নিজের অর্ধশতরান করার পর আউট হন ক্যারেবিয়ান তারকা। ১৩ তম ওভারে চতুর্থ উইকেট পড়ে পঞ্জাবের। রাবাডার বলে ২৮ বলে ৫৩ রান করে আউট হন পুরান। এরপর ইনিংস এগিয়ে নিয়ে যান ম্যাক্সওয়েল ও দীপক হুডা। কিন্তু ১৬ তম  ওভারে রাবাডার বলে আউট হন ম্যাক্সওয়েল। তিনি করেন ৩২ রান। এরপর ক্রিজে আসেন জিমি নিশাম। নিশাম ও দীপক হুডা মিলে পঞ্জাবকে জয়ের লক্ষ্যে নিয়ে যায়। ৬ বল বাকি থাকতেই জয় পেয়ে যায় কেএল রাহুলের দল। ১৫ রানে দীপক হুডা ও ১০ রানে জিমি নিশাম নট আউট থাকেন। এই জয়ের ফলে লিগ টেবিলে পঞ্চম স্থানে উঠে এল কিংস ইলেভেন পঞ্জাব।