টানা তিন ম্যাচ জয়। আত্মবিশ্বাস তুঙ্গে। এগিয়ে থেকেই আইএসএলের চতুর্থ ম্যাচে মাঠে নেমেছিল এটিকে মোহনবাগান। অপরদিকে ৩ ম্য়াচে ২টি ড্র ও একটি হারের মুখ দেখতে হয়েছিল ওয়েন কোয়েলের জামশেদপুর এফসিকে। কিন্তু প্রথমার্ধের খেলা শেষে সব হিসেব নিকেশ অনেকটাই বদলে দিয়েছে জামশেদপুর। কারণ ৪৫ মিনিট পর অ্যান্টোনিও লোপেজ হাবাসের এটিকে মোহনবাগানের থেকে ১-০ গোলে এগিয়ে জানশেদপুর এফসি। গোলদাতা তারকা স্ট্রাইকার নেরিউস ভাল্সকিস।

এদিন টানটান উত্তেজনায় শুরু হয় দুই দলের খেলা। মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রন রাখা ও রক্ষণ সামলে আক্রমণে যাওয়ার ছকেই খেলা শুরু করে হাবাস ও কোয়োলের দল। দুই দলই প্রথম অর্ধে বেশ কয়েকটি সুযোগ তৈরি করে। ম্যাচের ৩০ মিনিটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন জামশেদপুর এফসির প্রাণভোমরা নেরিউস ভাল্সকিস। এই নিয়ে টানা চার ম্যাচ গোল করলেন তারকা স্ট্রাইকার। এক গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর এটিকে মোহনবাগান আক্রমণের মাত্রা বাড়ায়। কিন্তু প্রথমার্ধে গোলের মুখ খুলতে পারেনি হাবাসের দল।

প্রথমার্ধে শুধু গোল করাই নয়, অন্য়ান্য বিভাগেও সবুজ-মেরুণ শিবিরকে টেক্কা দেয় ওয়েন কোয়েলের দল। বল পজিশন এটিকে মোহনবাগান ৫১ শতাংশ ও জামশেদপুর এফসি ৪৯ শতাংশ। গোলমুখী ৫টি শট করেছে জামশেদপুর। অপরদিকে মাত্র একটি শট করেছে হাবাসের দল। তবে দুটি হলুদ কার্ড দেখতে হয়েছে জামশেদপুরের প্লেয়ারদের। এবারের আইএসএলে প্রথমাবর গোল হজম করে প্রথমার্ধের খেলায় পিছিয়ে রয়েছে বাগান।  দ্বিতীয়ার্ধে হাবাসের মগজাস্ত্র ও রয় কৃষ্ণার ম্যাজিকের উপর ভরসা রাখছেন বাগান সমর্থকরা।