টানা তিন ম্যাচ জয়ের পর আইএসএলে প্রথম হার এটিকে মোহনবাগানের। অবশেষে থামল অ্যান্টোনিও লোপেজ হাবাসের বিজয় রথ। জামশেদপুর এফসির বিরুদ্ধে ২-১ গোলে হারতে হল সবুজ-মেরুণ ব্রিগেডকে। ম্যাচে জোড়া গোল করে ফের জামশেদপুর এফসির নায়ক হলেন নেরিউস ভাল্সকিস। অপরদিকে মোহনবাগানের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন সেই রয় কৃষ্ণা। প্রতিযোগিতার প্রথম জয় পেয়ে খুশি ওয়েন কোয়েল জামশেদপুর এফসি।

এদিন টানটান উত্তেজনায় শুরু হয় দুই দলের খেলা। মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রন রাখা ও রক্ষণ সামলে আক্রমণে যাওয়ার ছকেই খেলা শুরু করে হাবাস ও কোয়োলের দল। দুই দলই প্রথম অর্ধে বেশ কয়েকটি সুযোগ তৈরি করে। ম্যাচের ৩০ মিনিটে গোল করে দলকে এগিয়ে দেন জামশেদপুর এফসির প্রাণভোমরা নেরিউস ভাল্সকিস। এই নিয়ে টানা চার ম্যাচ গোল করলেন তারকা স্ট্রাইকার। এক গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর এটিকে মোহনবাগান আক্রমণের মাত্রা বাড়ায়। কিন্তু প্রথমার্ধে গোলের মুখ খুলতে পারেনি হাবাসের দল।

দ্বিতীয়ার্ধে দুই দলই আক্রমণাত্ব ফুটবল খেলে। খেলায় সমতা ফেরানোর জন্য গোলের জন্য ঝপায় এটিকে মোহনবাগান। কিন্তু ম্য়াচের ৬৬ মিনিটে নিজের ও দলের দ্বিতীয় গোল করে জামশেদপুর এফসিকে এগিয়ে দেন নেরিউস ভাল্সকিস। ২ গোলে পিছিয়ে পড়েও দমে যায়নি হাবাসের দল। যার ফলস্বরূপ ম্য়াচে ৮০ মিনিটে বাগানের হয়ে প্রথম গোল করেন রয় কৃষ্ণা। এরসঙ্গে পরপর চার ম্যাচে গোল করে ফেললেন তারকা স্ট্রাইকার। ব্যবধান কমানোর পর শেষ ১০ মিনিটে আক্রমেণের মাত্রা আরও বাড়ায় সবুজ-মেরুণ শিবির। কিন্তু শেষ রক্ষা হয়নি। এই ম্য়াচ হারের ফলে ৪ ম্যাচে ৯ পয়েন্ট নিয়ে লিগ টেবিলের দ্বিতীয় স্থানে রইল হাবাসের দল। ১১ তারিখ এটিকে মোহনবাগানের পরবর্তী ম্য়াচে হায়দরাবাদ এফসির বিরুদ্ধে।