আইএসএলে টানা তৃতীয় হার এসসি ইস্টবেঙ্গলের। নর্থইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে ২-০ গোলে হারতে হল রবি ফাউলারের দলকে। সময়টা যে মোটেই ভালো যাচ্ছে না লাল-হলুদ শিবিরের এদিন ম্যাচই তার প্রমাণ। কারণ আদকের ম্য়াচে আত্মঘাতী গোলও হজম করতে হয় ফাউলারের দলকে। সুচন্দ্র সিংয়ের আত্মঘাতীয় গোলে প্রথমে এগিয়ে য়ায় নর্থইস্ট। ম্যাচের ইনজুরি টাইমে পাহাড়ি দলের হয়ে দ্বিতীয় গোলটি করেন রোকারজেলা। এই ম্য়াচ জয়ের ফলে অপরাজিত তকমা ধরে রাখল জেরার্ড নাসের দল।

এদিন ম্যাচের শুরু থেকেই কিছুটা রক্ষণাত্বক ভঙ্গিতে খেলা শুরু করে দুই দল। প্রতিপক্ষকে মেপে নিয়ে, রক্ষণ সামলে আক্রমণে যাওয়ার চেষ্টা করে দুই দল। মাঝমাঠের দখল নেওয়ারও চেষ্টা করে এসসি ইস্টবেঙ্গল ও নর্থইস্ট ইউনাইটেডের প্লেয়াররা। তবে ম্য়াচের ৩৩ মিনিটে ঘটে যায় অঘটন। ইস্টবেঙ্গলের মাঝমাঠের প্লেয়ার সুরচন্দ্র সিংয়ের আত্মঘাতী গোলে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে জেরার্ড নাসের দল। প্রথমার্ধের এরপর আর কোনও গোল হয়নি। ১ গোলে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় জেরার্ড নাসের দল।

দ্বিতীয়ার্ধে  গোল শোধ করার লক্ষ্য ঝাঁপায় রবি ফাউলারের দল। কিন্তু নর্থইস্টের জমাটি রক্ষণ ভাঙতে সমর্থ হয়নি মাঘোমা, বলবন্ত, পিলকিংটনরা। যদিও অন্য়ান্য ম্যাচের থেকে এদিন কিছুটা বাল ফুটবল খেলে ইস্টবেঙ্গল। বল পজিশন থেকে শট সব কিছুতেই এগিয়ে ছিল  লাল-হলুদ। কিন্তু গোল নামক কাজের কাজটা করে উঠতে পারেননি কেউই। ম্য়াচের ইনজুরি টাইমে আক্রমণাত্ব ফুবল খেলতে গিয়ে দ্বিতীয় গোল হজম করে এসসি ইস্টবেঙ্গল। নর্থইস্টের হয়ে দ্বিতীয় গোল করেন রোকারজেলা। এই ম্য়াচ জয়ের ফলে লিগ টেবিলে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এল নর্থইস্ট ইউনাইটেড। অপরদিকে প্রিয় দলের হারের হ্যাটট্রিক হওয়ায় হতাশ লাল-হলুদ সমর্থকরা। এসসি ইস্টবেঙ্গলের পরবর্তী ম্যাচ ১০ ডিসেম্বর। প্রতিপক্ষ জামশেদপুর।