আর মাত্র কয়েকদিনের অপেক্ষা। এরপরেই কৈলাশ থেকে ছেলেপুলেদের নিয়ে বাপির বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেবেন 'মা'। শরতের মেঘলা আকাশ, শিউলি ফুলের গন্ধ জানান দিচ্ছে সে কথা। আর এরই মধ্যে নিজেদের নতুন নতুন চিন্তাভাবনা নিয়ে প্যান্ডেলের কাজ শুরু করেছে দুর্গা পুজো কমিটি এবং ক্লাবগুলি। পুজো মানেই থিমের দৌড়ে কে এগিয়ে কে পিছিয়ে। সেই থিমের ভাবনাকে মাথায় রেখে আবার নতুন থিমের চিন্তাভাবনায় বেহালা বুড়ো শিবতলা জনকল্যাণ সংঘ। 

বরাবরই কলকাতার সেরা পুজোর তালিকায় থাকে এই ক্লাব। তাদের মণ্ডপে আধুনিক চিন্তাভাবনা ও নতুনত্বের প্রয়োগ সর্বদাই মানুষের মনে আলাদাই জায়গা করে নিয়েছে। তাই প্রতি বছরেই বেহালা বুড়ো শিবতলা জনকল্যাণ সংঘের প্যান্ডেলে ভরে যায় মানুষের ঢল।

 ১২ পেরিয়ে এবার ১৩তম বর্ষে বেহালা বুড়ো শিবতলা জনকল্যাণ সংঘ। এবছর তাদের প্যান্ডেলের থিম 'যন্ত্র না যন্ত্রনা'। সবুজ ও অরণ্যকে ধ্বংস করে প্রতিনিয়ত প্রস্তুত হচ্ছে আধুনিক নগরায়ণ। শক্তি উৎপাদনের জন্য নদীর স্বাভাবিক প্রবাহতে দেওয়া হচ্ছে বাঁধ। শুধু জল বা স্থলই নয়। ফোন, বিমান এসব কারনের জন্য ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ওজোন স্তর। যার ফলে অতি বেগুনী রশ্মি প্রবেশ করছে । যা বিপদ ডেকে আনছে মানুষের জীবনে। অনেক প্রাণী ও পক্ষী ও বিলুপ্তের পথে। সুখ আর আধুনিক জীবনযাপনের স্বার্থে বিজ্ঞানের অপপ্রয়োগ ও অতিপ্রয়োগ ধীরে ধীরে অভিশাপ হয়ে ঘিরে ধরছে পৃথিবীকে। শ্রেষ্ঠ জীব মানুষ ও আজ এক অবচেতন 'যন্ত্র' মাত্র। তাই এই অনাচার সম্পর্কে মানুষের সচেতনতাকে আরও কয়েক ধাপ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্যই এই অসাধারন থিমটিকেই নিজেদের পুজোমণ্ডপে ফুটিয়ে তুলতে চলেছে এই ক্লাব। 

গতবছরেও এক অসাধারন থিমের মাধ্যমে দর্শনার্থীদের আবেগতাড়িত  করেছিল বেহালা বুড়ো শিবতলা জনকল্যাণ সংঘ। গতবছর পুজোয় তাদের থিম ছিল 'বঙ্গাসুর বধ'। অসাধারন কারুকার্যে সাজিয়েছিল তারা তাদের গতবছরের মণ্ডপ। যা প্রানবন্ত করেছিল তাদের গতবছরের থিমকে। তা যথেষ্ট জনপ্রিয়তা ও পেয়েছিলো দর্শনার্থীদের মধ্যে। তাই এবার ঠিক কি নতুনত্ব রয়েছে তাদের থিমের মধ্যে তা জানতে গেলে অবশ্যই ঘুরে আসতে হবে এই প্যান্ডেলে।  

এই ক্লাবের ঠিকানা হল ৩১/এ, বুড়ো শিবতলা মেন রোড, কলকাতা, ৭০০০৩৮ ।