মাতলামির জেরে নাভিশ্বাস ওঠার পরিস্থিতি হল পাইলটের। শেষে যাত্রীর বিরুদ্ধে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত অভিযোগ জানালেন বিমানের চালক। মদের জন্য বাড়াবাড়ি করে হাজতে ঠাঁই হল বিমানযাত্রীর।

একেই বলে বলে নেশা। এক পেগ অতিরিক্ত না পেয়ে বিমান মাথায় তোলার জোগাড় করলেন যাত্রী। বিমানসেবকরা বার বার বোঝানোর চেষ্টা করলেও বাগে আনা যায়নি তাঁকে। এমনকী মদ না পেয়ে উল্টে বিমানসেবকদের ওপর চড়াও হন ওই মদ্যপ যাত্রী। বিমান সেবকদের অভিযোগ, দোহা থেকে বিমানে ওঠার পরই বিমানে যাত্রীদের জন্য বরাদ্দ মদ দেওয়া হয় অভিযুক্তকে। যা খেয়ে টাল মাটাল অবস্থা হয় তাঁর। এক সময় মাতলামির জেরে শিশুকে ধাক্কা মেরে দেন ওই ব্য়ক্তি। বহুবার অনুরোধ করা সত্ত্বেও সিটে বসানো যাচ্ছিল না তাঁকে। বার বার আরও মদের জন্য সবাইকে ব্য়তিব্য়স্ত করে তুলেছিলেন তিনি। বিমানসেবকরা মদ দিতে অস্বীকার করায় ক্ষোভে ফেটে পড়েন তিনি। এরপরই বিমানসেবকদের ওপর হাত ওঠান বলে অভিযোগ। 

বেগতিক দেখে পাইলটের নির্দেশে ওই যাত্রীকে কলকাতা বিমানবন্দরে এনএসসিবিআই কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয়। ইতিমধ্যেই বিমানের মধ্য়ে মাতলামি ও বিমানসেবকদের মারধরের অভিযোগ ওই যাত্রীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে এই প্রথমবার নয়। এর আগেও বহুবার মদ খেয়ে বিমানে মাতলামির একাধিক অভিযোগ সামনে এসেছে। যার জেরে বিমানে মদ পরিবেশন বন্ধ কের দেয় একাধিক বিমান সংস্থা। কিন্তু বিমানে বিজনেস ক্লাসে বিলাসবহুল যাত্রা দিতে ফিরিয়ে আনা হয় মদ পরিবেশনের ব্য়বস্থা। কিন্তু অন্য় যাত্রীদের কথা মাথায় রেখে এখন বিমানে যাত্রীর ঢালাও মদ খাওয়াতে বিধিনিষেধ জারি করেছে বিমান সংস্থাগুলি। তাদের বিশ্বাস, বিমানের সুস্থ পরিবেশ বজায় রাখতে যাত্রীকে  মদ্য়প হত দেওয়া যাবে না।