নারদা কাণ্ডে ধৃত আইপিএস অফিসার এসএমএইচ মির্জাকে নিয়ে মুকুল রায়ের এলগিন রোডের ফ্ল্যাটে গেল সিবিআই। নারদা কাণ্ডের পুনর্নির্মাণের জন্যই ধৃত আইপিএস অফিসারকে মুকুলের ফ্ল্যাটে নিয়ে আসা হয়।  সিবিআই সূত্রের খবর, এসএমএইচ মির্জা  দাবি করেছেন, এখানেই মুকুল রায়ের সঙ্গে তাঁর কথা হয়েছিল। বিজেপি নেতার ফ্ল্যাটে বসেই মুকুল রায়কে নারদার সাংবাদিক ম্যাথু স্যামুয়েলের থেকে নেওয়া টাকা দিয়েছিলেন তিনি।

সেই ঘটনার পুনর্নির্মাণের জন্যই রবিবার সকালে মুকুল রায়ের বাড়িতে আসে সিবিআই। সিবিআই সেই ঘটনার পুনর্নির্মাণের পাশাপাশি পুরো ঘটনা ক্যামেরাবন্দি করেছে। প্রায় এক ঘণ্টা ছিলেন সিবিআইয়ের আধিকারিকরা।

প্রসঙ্গত গত বৃহস্পতিবার নারদা কাণ্ডে এসএমএইচ মির্জাকে গ্রেফতার করেছিল সিবিআই। তার পরেই ডেকে পাঠানো হয় বিজেপি নেতা মুকুল রায়কে। শনিবার সিবিআই দফতরে মির্জা এবং মুকুলকে মুখোমুখি বসিয়ে জেরা করা হয়। তার পরেই এ দিন সকালে মির্জাকে নিয়ে মুকুলের ফ্ল্যাটে হানা দেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। 

সিবিআই-এর এই পদক্ষেপের পরেও অবশ্য নিজের আগের বক্তব্যেই অনড় মুকুল। তাঁর দাবি, নারদা কাণ্ডে কোনও ভিডিও ফুটেজে তাঁর টাকা নেওয়ার প্রমাণ নেই। শনিবার সিবিআই দফতর থেকে বেরনোর সময়ও মুকুলের মুখে ষড়যন্ত্র তত্ত্বের কথা শোনা গিয়েছিল। এ দিনও সেই একই কথা বলেন মুকুল। সরাসরি না বললেও তাঁর ইঙ্গিত, ধৃত পুলিশকর্তা তাঁকে ফাঁসানোর জন্যই বার বার তাঁর নাম নিচ্ছেন। শনিবার মুকুল রায় সরাসরি দাবি করেছিলেন, তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।